হঠাৎ করেই বিজেপির হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছাড়লেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। শুরু জল্পনা।

হঠাৎ করেই বিজেপির হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছাড়লেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। শুরু জল্পনা।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটের আগে রাজ্যে পালাবদলের ইঙ্গিত পেয়ে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে আশ্রয় নিয়েছিলেন বেশ কিছু তৃণমূল নেতা নেত্রীরা। তারাই আবার তৃণমূলের জয়লাভের পর ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে গিয়ে তৃণমূলে ফিরতে চাইছেন। দলবদলু বেশ কিছু নেতা নেত্রীরা আবার বিজেপির ছত্রছায়া ছেড়ে তৃণমূলে ফিরতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন ‌।

তৃণমূলের ফিরেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে চিঠি লিখেছেন প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক সোনালী গুহ, প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক দীপেন্দু বিশ্বাস সহ আরো বেশ কয়েকজন বিজেপি নেতা নেত্রীরা। এদিকে বিজেপি নেতা তথা একসময়ের দাপুটে তৃণমূল নেতা মুকুল রায়ের অবস্থান নিয়েও যথেষ্ট চিন্তিত বিজেপি। এরই মধ্যে আরেকটি ঘটনায় শুরু হয়েছে ব্যাপক জল্পনা বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ কে কেন্দ্র করে।

আরও পড়ুন-“অবসরপ্রাপ্ত আমলাদের পুনর্নিয়োগের বাধ্যতামূলক হবে ভিজিল্যান্সের ছাড়পত্র।”- জারি হল নির্দেশিকা।

২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনে সৌমিত্র খাঁ বিজেপি থেকে জিতে বিজেপি সাংসদ পদে অধিষ্ঠিত হয়েছিলেন। হঠাৎ করে তিনি বিজেপি একটি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়ে বেরিয়ে যান। তারপরেই দলের মধ্যে জল্পনা শুরু হয়েছে তার অবস্থানকে ঘিরে। এমনিতেই একুশের ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই রাজনৈতিক ময়দানে তাকে ততটা দেখা যায়নি। তাঁর স্ত্রী সুজাতা মন্ডল তৃণমূলে যোগদান করেছেন ।

আরও পড়ুন-“প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ন্ত্রণে এসেছে।”- প্রধানমন্ত্রীকে আগাম সার্টিফিকেট দিলেন অমিত শাহ।

যার দরুন সুজাতাকে বিবাহ বিচ্ছেদের নোটিশ পর্যন্ত দিয়ে দিয়েছেন সৌমিত্র খাঁ। কিন্তু হঠাৎ করে বিজেপির হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়ে বেরিয়ে যাওয়ায় তুমুল জল্পনার সৃষ্টি হয়েছে। এই প্রসঙ্গে সৌমিত্র খাঁ বলেছেন, “আমার এখন বিজেপি ছেড়ে দেওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। প্রতিদিন বিজেপি অজস্র গ্রুপ তৈরি হয় তারই মধ্যে একটি গ্রুপ থেকে বেরিয়ে গিয়েছি। আমি অনেক দ্বায়িত্ব কাঁধে নিয়ে কাজ করছি। আমার নেতৃত্বে বিষ্ণুপুরে অনেক শান্তি রয়েছে। অনেকেই এখন দল বদলাতে চাইছেন, আমি কিন্তু দলের বিশ্বস্ত একজন সৈনিকের মতোই থাকবো।”