নিউজ

হঠাৎ হাজিরা ত্রিপুরায়।পুজোর আগেই কি তৃণমূলে ফিরতে চলেছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় ?

নিজস্ব প্রতিবেদন: গত শনিবার থেকে উত্তপ্ত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে ত্রিপুরার মাটিতে। এই উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে হঠাৎ ত্রিপুরার মাটিতে পা রাখলেন বিজেপি নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও তিনি খাতায় কলমে বিজেপি নেতা থাকলেও বর্তমানে বারবার বিজেপির বিরুদ্ধাচারণ করছেন তিনি। বেশ কয়েকবার বিজেপির বিরুদ্ধে কথা বলে বিজেপি কর্মীদের বিরাগভাজন হয়েছেন তিনি। ‌

এর আগে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে সাক্ষাৎ করেছিলেন তিনি যার ফলে জল্পনা সৃষ্টি হয়েছিল যে খুব শীঘ্রই তিনি তৃণমূলে প্রত্যাবর্তন করতে চলেছেন। কিন্তু এই প্রসঙ্গে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে তৃণমূলের ফিরিয়ে নিতে একদমই নারাজ আপামর তৃণমূল সমর্থকরা। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ডোমজুড়ের মাটিতে একাধিক জায়গায় পোস্টার দিয়েছে তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা।

আরও পড়ুন – আগরতলায় খেলা হবে দিবসের আয়োজনে পায়ে বল নিয়ে নাচালেন প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়।

যদিও সরাসরি রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় কোন মন্তব্য করেননি। কিন্তু এই উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে হঠাৎ ত্রিপুরার মাটিতে তিনি কেন পদার্পণ করলেন সেই বিষয়ে যথেষ্ট জল্পনা সৃষ্টি হয়েছে। যদিও রাজ্যের প্রাক্তন সেচমন্ত্রী দাবি করেছেন যে তিনি কোন রাজনৈতিক কারণে ত্রিপুরার মাটিতে পা রাখেন নি। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, “আমি কোনরকম রাজনীতির আলোচনা করতে রাজি নই।

ত্রিপুরার মাটিতে একটা সরকার রয়েছে যাকে মানুষ ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে। আমি কোন রাজনৈতিক কারণে এখানে আসিনি, আমি শুধুমাত্র এসেছি ত্রিপুরেশ্বরী মন্দিরে পুজো দিতে । এর সাথে দয়া করে রাজনীতিকে জড়িয়ে দেবেন না।” আগরতলার কোথায় তিনি রয়েছেন সেই সম্পর্কে তিনি কিছু জানাননি। কিন্তু তিনি এই পরিস্থিতিতে হঠাৎ কেন ত্রিপুরা গিয়েছেন সেই বিষয়ে যথেষ্ট জল্পনার সৃষ্টি হয়েছে।

আরও পড়ুন –“হাসপাতালে শিশুদের জন্য ২০% কোভিড বেড সংরক্ষণ করতে হবে”- নির্দেশ দিল কেন্দ্রীয় সরকার।

অনেকেই মনে করছেন যে তিনি আগামী দূর্গাপূজার আগেই তৃণমূলে প্রত্যাবর্তন করতে পারেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই তিনি এই উত্তপ্ত পরিস্থিতির মধ্যেই ত্রিপুরা র‌ওনা হয়ে গিয়েছেন। তবে এর আগেও ত্রিপুরার বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের হয়ে প্রচারে গিয়েছিলেন তৎকালীন তৃণমূল মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় । কয়েক সপ্তাহ আগেই তিনি পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সাথে, কুণাল ঘোষের সাথে সাক্ষাৎ করেছিলেন।

Related Articles

Back to top button