নিউজ

“করোনায় মৃতদের অনাথ শিশুদের পড়াশোনা হোক নিখরচায়”- সরকারের কাছে মানবিক আবেদন জানালেন সোনু

নিজস্ব প্রতিবেদন: তিনি অসহায় ত্রাতা, গরীবের ভগবান। যার কাছে সাহায্য চেয়েছে কখনো কেউ নিরাশ না। তিনি হলেন সেই সোনু সুদ যিনি সিনেমার পর্দায় অবতীর্ণ হন ভিলেনরূপে, কিন্তু বাস্তবের মাটিতে তিনি আজ বহু মানুষের কাছে ভগবান স্বরূপ। প্রথম পর্যায়ের করোনার সন্ত্রাস চলাকালীন লকডাউনের আবহে বহু পরিযায়ী শ্রমিক কে তিনি নিজের খরচায় তাদের মাতৃভূমিতে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। বিহারের কয়েকজন পরিযায়ী শ্রমিক ফিরে গিয়ে তার মূর্তি প্রতিষ্ঠা করেছেন।

এছাড়াও তারপর থেকেই বিভিন্ন মানুষকে নানাভাবে সাহায্য করেছেন সোনু। কখনো তিনি হতদরিদ্র মানুষকে মাথায় ছাদ তৈরি করে দিয়েছেন তো কখনো গরীব কৃষককে দিয়েছেন ট্রাক্টর । আবার অসহায় গরীব ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে তুলে দিয়েছেন পড়াশোনার জন্য স্মার্ট ফোন। ‌ বিভিন্ন ভাবে মানুষকে সাহায্য করেছেন এই মানুষটি। ‌ নিজেও করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন কদিন আগেই।

কিন্তু সেই অবস্থাতেও তিনি ফোন করে করে অসহায় মানুষের জন্য জোগাড় করেছেন অক্সিজেন, বেড। এমনকি পর্যাপ্ত বেড না পেয়ে তিনি নিজের হতাশা ব্যক্ত করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও তুলে ধরে সরকারের কাছে মানবিক আবেদন করেছেন সোনু সুদ। তিনি বলেছেন, “আমি সরকার এবং যারা সাহায্য করতে চান সেই সমস্ত মানুষের কাছে অনুরোধ করতে চাই যে, করোনায় মৃতদের অনাথ ছেলেমেয়েদের শিক্ষা সম্পূর্ণ নিখরচায় হোক।

আরও পড়ুন-বীরভূমে বিজেপি প্রার্থী কে বাঁশ নিয়ে তাড়া করল দুষ্কৃতীরা। করা হলো গাড়ি ভাঙচুর। অভিযোগের তির তৃণমূলের দিকে।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কায় অনেকেই তাদের প্রিয়জনকে হারিয়েছেন। কেউ হারিয়েছে তার মাকে আবার কেউ হারিয়েছে তার বাবাকে, আবার কেউ বাবা-মা দু’জনকেই হারিয়েছে। ‌ এদের মধ্যে কোন শিশুর বয়স ৮ বছর তো কারো ১২। এই শিশুদের ভবিষ্যতে কি হতে চলেছে?

আমি চাই এমন একটি নিয়ম হোক যাতে সরকারি এবং বেসরকারি যে বিদ্যালয়েই ওই শিশুরা পড়ুক না কেন , তাদের পড়াশোনা নিখরচায় হোক। যাদের ক্ষমতা রয়েছে তারা এই নিয়ম অবশ্যই বানাতে পারবেন। আমি তাদের অনুরোধ করব তারা যেন এগিয়ে এসে এই সমস্ত পরিবারগুলিকে সুরক্ষিত করার উদ্যোগ গ্রহণ করেন।”অনেকেই অভিনেতার এই মানবিক অভিপ্রায়কে সমর্থন জানিয়ে অত্যন্ত প্রশংসা করেছেন তাঁর।

Related Articles

Back to top button