নিউজপলিটিক্সরাজ্য

বিজেপিতে বাড়তে চলেছে শুভেন্দু এবং দিলীপ ঘোষের সমান গুরুত্ব

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিজেপির কর্মকাণ্ডের অন্যতম মুখ হলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। রাজ্যের বিজেপির বিভিন্ন রদবদল হোক কিংবা অন্য কোনো বিজেপির রাজনৈতিক কর্মসূচি সবেতেই প্রধান মুখ হিসেবে প্রতীয়মান হন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনিই রাজ্য বিজেপিকে প্রধানত পরিচালনা করে থাকেন। একুশের ভোটের আগে রাজ্যে একটা বিরাট পালাবদলের হাওয়া উঠেছিলো বিজেপির অনুকূলে।

তার আগেই গত বছরের ডিসেম্বরে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লিখিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। আর শুভেন্দু অধিকারীর সাথে তখন থেকেই দিলীপ ঘোষের একটা ঠান্ডা লড়াই লক্ষ্য করা গিয়েছে। বর্তমান একুশের ভোটে রাজ্যে শোচনীয় পরাজয়ের পর শুভেন্দু অধিকারীকে প্রধান বিরোধী নেতার আসনে বসিয়েছে বিজেপি। এদিকে দিলীপ ঘোষের বিজেপি রাজ্য সভাপতি পদের মেয়াদ‌ও খুব শীঘ্রই শেষ হতে চলেছে।

আরও পড়ুন-মুকুল রায়ের প্রত্যাবর্তন হতেই বিরাট রদবদল হতে চলেছে তৃণমূলে

তাঁকেও একটা গুরুত্বপূর্ণ পদে বসানো হবে এমনটাই জানা গিয়েছে। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন বিজেপি মূলত সভাপতি কেন্দ্রীক‌ একটি দল।তবে এবার রাজ্য বিজেপিতে হতে চলেছে বিরাট পালাবদল। বিজেপির রাজ্য কোর কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে এবারে বিজেপিতে যে রদবদল হতে চলেছে তাতে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সাথে সমান ভাবে গুরুত্ব দেওয়া হবে শুভেন্দু অধিকারীকেও।

আরও পড়ুন-কসবা কাণ্ডে শুভেন্দু অধিকারী কে তোপ দাগলেন ফিরহাদ হাকিম !

যে কোনো রাজনৈতিক কর্মকান্ডে সভাপতিই যে প্রধান হোতা এই বিষয়টি এবার পাল্টাতে চাইছে বিজেপি। তাই এবার বিজেপিতে যথেষ্ট গুরুত্ব বাড়তে চলেছে শুভেন্দু অধিকারীর। দিলীপ ঘোষের দ্বায়িত্ব অনেকটাই গুরুত্বপূর্ণ। বিজেপি চাইছে রাজ্য সভাপতির সাথে বিরোধী দলনেতা একসাথে কাজ করুক, তাতে বিজেপির সাংগঠনিক শক্তি অনেকটাই বৃদ্ধি পাবে।

Related Articles

Back to top button