নিউজপলিটিক্সরাজ্য

কসবা ভুয়ো টিকা কান্ডে এবার কেন্দ্রীয় এজেন্সির মাধ্যমে তদন্তের দাবী জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে চিঠি দিলেন শুভেন্দু অধিকারী

নিজস্ব প্রতিবেদন: কসবার ভুয়ো ভ্যাকসিন কান্ডের মুখ্য হোতা দেবাঞ্জনের সাথেই তৃণমূলের প্রভাবশালী নেতাদের ওঠা বসা ছিল বলে অভিযোগ করেছে বিজেপি। বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু এই ভ্যাকসিন কাণ্ডে কলকাতার পুর প্রশাসক বোর্ডের প্রধান ফিরহাদ হাকিম এর দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন।গত বৃহস্পতিবার দেবাঞ্জন কে টানা ৫ ঘন্টা জেরা করেছে কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দারা। এই জেরায় দেবাঞ্জন জানিয়েছে করোনা পরিস্থিতি শুরু হ‌ওয়ার পরেই সে মাস্ক, স্যানিটাইজার বিলি করার কারবার শুরু করেছিলো।

কিন্তু এই কারবার তার বৈধ ছিলো না। তাই সকলের চোখে নিজেকে সঠিক প্রমাণ করার জন্য দেবাঞ্জন কলকাতা পুরসভার প্রভাবশালী ব্যক্তিদের সাথে ঘনিষ্ঠ হওয়ার চেষ্টা করেছিল। তারপরে সে একসময় কলকাতা পুরসভার অভ্যন্তরে নিজের জাল বিস্তার করতে সক্ষম হয়। ‌ প্রথমেই এক চিকিৎসক নেতার সাথে ঘনিষ্ঠতা তৈরি করে দেবাঞ্জন।

আরও পড়ুন-“বিজেপি বিরোধী কোনো মঞ্চ থেকে কংগ্রেসকে বাদ দেওয়া যাবে না।”- বললেন এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ার।

নিজেকে কন্ট্রাক্টর পরিচয় দিয়েছিল প্রথমে সে । এই পরিচয় সে পুরসভার সমস্ত আধিকারিকদের সঙ্গে মোটামুটি একটা সম্পর্ক তৈরি করে। পুরসভার মধ্যে অবাধ বিচরণ করতে থাকে সে। এর পর বেশ কিছু কন্ট্রাক্ট‌ও হাসিল করে দেবাঞ্জন।

কলকাতা কর্পোরেশনের কমিশনার তাপস চৌধুরীর সই জাল করে বেশ কয়েকটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খুলে দেবাঞ্জন। এই ঘটনায় সারা রাজ্য জুড়ে যথেষ্ট চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব বারবার অভিযোগ করে আসছে যে দেবাঞ্জনকে মদত দিয়েছে বেশ কিছু সরকারি আধিকারিক এবং প্রশাসনের রাজ্য নেতারা। বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু কয়েকদিন আগেই কসবার ভুয়ো টীকাকরণ কান্ডে সিবিআই তদন্তের দাবী তুলেছেন।

আরও পড়ুন-ঘুরিয়ে বিজেপির আলাদা রাজ্যের দাবিকে কি ইন্ধন দিলেন রাজ্যপাল ? গাঢ় হল জল্পনা।

এই মর্মে এবার কেন্দ্রীয় এজেন্সিকে দিয়ে তদন্ত করানোর দাবীতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধনকে চিঠি লিখেছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তিনি পুরো ঘটনার বিবরণ দিয়ে আবেদন করেছেন যে, এই ঘটনায় রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে তদন্ত হলে তা কখনোই নিরপেক্ষ হবে না, কারণ দেবাঞ্জন এই ঘটনায় একা নন, রাজ্যের বহু প্রথম সারির নেতারা এই ঘটনায় জড়িত রয়েছেন। তাই কেন্দ্রীয় এজেন্সিকে দিয়ে তদন্ত করানো হোক। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক এই ঘটনায় ব্রিফিং নিয়েছে।

কিন্তু ফিরহাদ হাকিম প্রথম থেকেই এই ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবি খারিজ করে দিয়েছেন।

Related Articles

Back to top button