নিউজপলিটিক্সরাজ্য

মুকুলের বিধায়ক পদ খারিজ করার জন্য রণকৌশল সাজাচ্ছেন শুভেন্দু অধিকারী।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিজেপি থেকে দীর্ঘ চার বছরের সম্পর্ক শেষ করে তৃণমূলে প্রত্যাবর্তন করেছেন মুকুল রায়। বিজেপি থেকে দাঁড়িয়ে তিনি কৃষ্ণনগর উত্তর কেন্দ্রে জয়লাভ করেছিলেন। বিধায়ক পদে আসীন হয়েছিলেন মুকুল রায়। কিন্তু ফলাফল ঘোষণা হওয়ার দেড় মাস পরেই তিনি আবার যোগ দিয়েছেন তৃণমূলে।

আর মুকুলের তৃণমূলে প্রত্যাবর্তনে হঠাৎ করেই রাজনৈতিক সমীকরণ যেন ওলট পালট হয়ে গিয়েছে বিজেপির। বিজেপি থেকে মুকুলের হাত ধরে তৃণমূলে পা বাড়িয়ে রয়েছেন বহু নেতা, কর্মীরা এমনটাই বলছেন মুকুল রায়। এদিকে মুকুল রায় কে আটকাতে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী রাজনৈতিক লড়াইয়ের প্রাঙ্গণে উত্তীর্ণ হয়েছেন। মুকুল রায় কে রোখার জন্য নিজেদের রণকৌশল সাজাচ্ছে বিজেপি।

আরও পড়ুন-মুকুল রায়ের জায়গায় কি আসতে চলেছেন বিজেপির রাজ্যসভার এই সাংসদ?

শুভেন্দু অধিকারী আজ বিধানসভায় একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক সম্পন্ন করেছেন। দলবদলু নেতা মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার লক্ষ্যে আইনি রাস্তায় হাঁটতে চলেছে বিজেপি। বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় এর কাছে আজ দলত্যাগ বিরোধী আইন লাগু করার আবেদন জানাবে গেরুয়া শিবির। তাকে চিঠি দিয়ে মুকুল রায়ের বিধানসভার সদস্য পদ খারিজ করার আবেদন করবে বিজেপি।

আরও পড়ুন-গঙ্গায় ভেসে এলো ২২ দিনের একরত্তি শিশুকন্যা। যাবতীয় দ্বায়িত্ব নিলো যোগী সরকার।

আজ বৈঠকে এমনটাই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী দিল্লি গিয়ে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে বলেছিলেন, “আমার নাম শুভেন্দু অধিকারী, তৃণমূলের ক্ষমতা থাকে তাহলে বিজেপির দল ভাঙিয়ে দেখাক।” এর কয়েকদিন পরেই মুকুল রায় বিজেপি থেকে তৃণমূলের প্রত্যাবর্তন করেন।এই পরিপেক্ষিতে আজ বিধানসভায় বিরোধী দলনেতার কক্ষে আইনজীবী এবং দুই বিজেপি বিধায়কের সাথে বৈঠক সম্পন্ন করেছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।

আরও পড়ুন-মুকুলের বিরুদ্ধে লড়াই করতে ময়দানে আসীন হলেন শুভেন্দু। সাজানো হচ্ছে রণকৌশল।

প্রসঙ্গত মুকুল রায় বিধায়ক পদ ছাড়তে রাজি হচ্ছেন না। তিনি বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্দেশ দিলে তবেই তিনি এই বিধায়ক পদ ত্যাগ করবেন। তাঁর এই ঘোষণার পরেই দলত্যাগ বিরোধী আইন লাগু করার জন্য ব্যাপক চেষ্টা চালাচ্ছে রাজ্য বিজেপি।

Related Articles

Back to top button