‘শুভশ্রী তুমি দ্রুত সুস্থ হয়ে ইউভানের কাছে যেতে পারো এটাই চাই আমি’;প্রাক্তন প্রেমিকার আরোগ্য কামনায় বার্তা দিলেন দেব!

‘শুভশ্রী তুমি দ্রুত সুস্থ হয়ে ইউভানের কাছে যেতে পারো এটাই চাই আমি’;প্রাক্তন প্রেমিকার আরোগ্য কামনায় বার্তা দিলেন দেব!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-করোনাভাইরাস এর থাবা ধীরে ধীরে বলিউড ছাড়িয়ে টলিউডের দিকে হাত বাড়াতে শুরু করে দিয়েছে। ইতিমধ্যেই বাংলা চলচ্চিত্র জগতের একাধিক অভিনেতারা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।সম্প্রতি টলিউডের দুই জনপ্রিয় তারকা জিৎ এবং শুভশ্রীর গতকাল একই সঙ্গে ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার খবর সামনে আসে। এই খবর প্রকাশ্যে আসার পর অনেকটাই মনমরা হয়ে পড়েছেন তাদের অনুরাগীরা।

বিশেষত সম্প্রতি কিছুদিন আগেই মা হয়েছেন শুভশ্রী।তাই স্বাভাবিকভাবেই এই সময়ে তার প্রয়োজনীয় সতর্কবার্তা মেনে চলা উচিত। কারণ বর্তমানে বাচ্চা থেকে বয়স্ক সবাইকেই এই ভাইরাস গ্রাস করে চলেছে। প্রসঙ্গত দীর্ঘদিন প্রেম সম্পর্কে আবদ্ধ থাকার পর ২০১৮ সালের মে মাসে পরিচালক রাজ চক্রবর্তীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন শুভশ্রী। এরপর গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে তাদের একমাত্র পুত্র ইউভানের জন্ম হয়। বর্তমানে সাত মাসে পদার্পণ করেছে তাদের এই সন্তান। কিছুদিন আগেই তার মুখে ভাত অনুষ্ঠান এবং ছয় মাসের জন্মদিন পালন করেছেন তারকা দম্পতি।

বেশ জাঁকজমক সহকারেই হালিশহরের বাড়িতে রাজ–পুত্রের মুখে ভাত অনুষ্ঠান সম্পন্ন করা হয়।রাজের সঙ্গে সম্পর্কের বহু আগে টলিউডের অপর আর এক জনপ্রিয় অভিনেতা দেবের সাথে প্রেম সম্পর্ক ছিল শুভশ্রীর।কিন্তু সেই সম্পর্ক বেশিদিন টিকিয়ে রাখা সম্ভব হয়নি অভিনেত্রীর পক্ষে। এমতাবস্থায় শুভশ্রীর ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার খবর শুনে প্রাক্তন প্রেমিক দেব তাকে দ্রুত আরোগ্য হয়ে ওঠার বার্তা দিলেন।

আরও পড়ুন-“করোনার এই বাড়াবাড়ি ম্যান মেড নয়, এটা মোদী মেড ডিজাস্টার”- প্রধানমন্ত্রীকে বিঁধলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

প্রসঙ্গত গতকাল নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে শুভশ্রী অনুরাগীদের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর জানান। তা জানার পর অভিনেতা দেব শুভশ্রী কে উদ্দেশ্য করে লেখেন,”শুভশ্রী তুমি দ্রুত সুস্থ হয়ে, ইউভানের কাছে যেতে পারো এটাই চাই আমি”!যদিও এখনো পর্যন্ত দেবের এই মন্তব্যের কোনরকম প্রতুত্তর জানাননি অভিনেত্রী।আপাতত ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার কথা জানার পর থেকেই সম্পূর্ণ নিভৃতবাসে রয়েছেন অভিনেত্রী। বর্তমানে নির্বাচনী কাজে স্বামী রাজ চক্রবর্তী ব্যস্ত থাকায় ইউভান এর সমস্ত দায়িত্ব চলে এসেছে ঠাকুমার হাতে।

কারণ যতদিন পর্যন্ত না সম্পূর্ণরূপে সুস্থ হয়ে উঠছেন শুভশ্রী গাঙ্গুলী, ততদিন পর্যন্ত নিজের ছেলের থেকে দূরত্ব বজায় রাখতে হবে তাকে। প্রসঙ্গত গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই বাংলায় ভাইরাসের সংক্রমনের পরিমাণ বেড়ে চলেছে। বিশেষত নির্বাচনী প্রচার কাজ চলায় সেই আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী এবং কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী নিজেদের প্রচারে কাটছাঁট করলেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী থেকে শুরু করে বিজেপি নেতারা বাংলায় নির্বাচনী প্রচারে কোনরকম খামতি রাখতে রাজি নয়। এমতাবস্থায় প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে নির্বাচন না মানুষের জীবনে কোনটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ!