“বাতিল হবে মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক। হবে মূল্যায়ণ।”- সাংবাদিক বৈঠকে ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

“বাতিল হবে মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক। হবে মূল্যায়ণ।”- সাংবাদিক বৈঠকে ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

নিজস্ব প্রতিবেদন: করোনা আবহে হয়তো বাতিল হতে পারে মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা এমনটাই ঘোষণা করেছিলো রাজ্য শিক্ষা দপ্তর। রাজ্য সরকারের গঠিত ছয় সদস্যের বিশেষজ্ঞ কমিটি মতামত দিয়েছে যে এই ভয়াবহ আবহে ২১ লক্ষ পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা নেওয়া এই মুহূর্তে সম্ভব নয়। এর কারণ হিসাবে বলা হচ্ছে যে করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তে পারে। এই ঢেউয়ে শিশুরাও আক্রান্ত হতে পারে।

এছাড়াও মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের এখনো ভ্যাকসিন দেওয়াও হয়নি। তাই এই আবহে কার্যত পরীক্ষা নেওয়া উচিৎ হবে না। প্রশ্ন উঠেছে যে এই দুই পরীক্ষা বাতিল হলে পরীক্ষার্থীদের মূল্যায়ন কিভাবে সম্ভব হবে?এই প্রসঙ্গে একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর। মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা হবে কিনা এই মর্মে পড়ুয়াদের এবং অভিভাবকের থেকে মতামত চেয়েছে পশ্চিমবঙ্গ শিক্ষা দপ্তর।

আরও পড়ুন-“পড়ুয়াদের কল্যাণ ও স্বাস্থ্য সরকারের কাছে অধিক গুরুত্বপূর্ণ।”- সিবিএস‌ই দ্বাদশের পরীক্ষা বাতিল প্রসঙ্গে বললেন প্রধানমন্ত্রী।

এছাড়াও জনসাধারণ‌ও তাঁদের মতামত জানাতে পারবেন। রাজ্য সরকার একটি ৬ জন সদস্য বিশিষ্ট বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করেছে। এই কমিটি খুব শীঘ্রই তাদের রিপোর্ট পেশ করবেন রাজ্য সরকারের কাছে। আজ বেলা ২ টো পর্যন্ত জনসাধারণের মতামত নেওয়া হবে এমনটাই ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন-দেখুন আধার কার্ডে কিভাবে বদলাবেন আপনার ছবি?

অবশেষে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন যে, “রাজ্য সরকার প্রায় ৩৪ হাজার ইমেইল পেয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই জানানো হবে যে কিভাবে এই পরীক্ষার মূল্যায়ন করা হবে। অনেকেই পরীক্ষা না করার দিকেই মতামত ব্যক্ত করেছেন। জনমতকে গুরুত্ব দিয়েই আমরা পরীক্ষা না করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি।

আরও পড়ুন-ভারী বৃষ্টিতে ভিজতে চলেছে বাংলার এক অংশ। নিম্নলিখিত জেলাগুলোতে হতে পারে বৃষ্টি।

পড়ুয়াদের সুরক্ষার দিকটি আমাদের সর্বাগ্রে নজরে রয়েছে।”