নিউজঅন্যান্যকলকাতারাজ্য

করোনা আবহে বাতিল হতে পারে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা।

নিজস্ব প্রতিবেদন: মধ্যশিক্ষা পর্ষদ এবং উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ জানিয়েছিলো যে আগস্টে হতে পারে মাধ্যমিক এবং তার আগে জুলাইয়েই হয়ে যাবে উচ্চমাধ্যমিক। জানা গিয়েছিল পরীক্ষা হবে পরীক্ষার্থীদের নিজস্ব স্কুলেই। করোনা আবহে পরীক্ষার্থীদের সুরক্ষার বিষয়টি সম্পর্কে গুরুত্ব দিয়ে বোর্ড জানিয়েছিলো যে তিন ঘন্টার পরীক্ষা হবে দেড় ঘন্টায়।

মাল্টিপল চয়েসের উপর অধিক গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছিলো। এছাড়াও পরীক্ষা হলে কড়া করোনা বিধিনিষেধ অবলম্বন করার কথাও বলা হয়েছিলো। ঘোষণা করা হয়েছিলো যে শুধুমাত্র আবশ্যিক বিষয়গুলির পরীক্ষা নেওয়া হবে, বাকি বিষয়গুলির স্কুলে পরীক্ষায় পাওয়া নম্বরের ভিত্তিতে মূল্যায়ন হবে।কিন্তু এবার জানা গিয়েছে, করোনা আবহে হয়তো বাতিল হতে পারে মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা।

আরও পড়ুন-ভোটের পরেই আবার ময়দানে নামছেন তৃণমূলের ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোর।

রাজ্য সরকারের গঠিত ছয় সদস্যের বিশেষজ্ঞ কমিটি মতামত দিয়েছে যে এই ভয়াবহ আবহে ২১ লক্ষ পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা নেওয়া এই মুহূর্তে সম্ভব নয়। এর কারণ হিসাবে বলা হচ্ছে যে করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তে পারে। এই ঢেউয়ে শিশুরাও আক্রান্ত হতে পারে। এছাড়াও মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের এখনো ভ্যাকসিন দেওয়াও হয়নি।

আরও পড়ুন-প্রধানমন্ত্রীর ফোনকে গুরুত্ব না দিয়ে অভিষেক এবং মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসা মুকুল পুত্রের।

তাই এই আবহে কার্যত পরীক্ষা নেওয়া উচিৎ হবে না। প্রশ্ন উঠেছে যে এই দুই পরীক্ষা বাতিল হলে পরীক্ষার্থীদের মূল্যায়ন কিভাবে সম্ভব হবে? এর দরুন একাধিক পদক্ষেপের চিন্তাভাবনা নেওয়া হচ্ছে। বিশেষজ্ঞ কমিটি চিন্তাভাবনা করছে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের বাড়িতে বসিয়ে হোম অ্যাইনমেন্ট দিয়ে মূল্যায়ন করা হতে পারে।

আরও পড়ুন-শুভেন্দু অধিকারীকে বিরোধী নেতা মানতে রাজী নন দলের‌ই ৩৪ জন বিধায়ক।

মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে ১০ নম্বরের অভ্যন্তরীণ মূল্যায়ন এবং নবম শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল দেখে সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। বিশেষজ্ঞ কমিটি তাদের চূড়ান্ত রিপোর্ট পেশ করার পরেই এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে নবান্ন।এদিকে সিবিএস‌ই পরীক্ষার স্থগিত হয়ে যাওয়ার বিষয়ে ১২ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠিত হয়েছে।

Related Articles

Back to top button