মসজিদের মাইকের আওয়াজে নিয়ন্ত্রণ জারি করল সৌদি আরব। প্রতিবাদে সরব একাংশ দেশবাসী

মসজিদের মাইকের আওয়াজে নিয়ন্ত্রণ জারি করল সৌদি আরব। প্রতিবাদে সরব একাংশ দেশবাসী

নিজস্ব প্রতিবেদন: সৌদি আরব। উন্নত এই দেশে জারি রয়েছে বেশ কিছু কড়া শরীয়তী নিয়ম কানুন। বিশেষ করে মহিলাদের ক্ষেত্রে জারি রয়েছে বেশ কিছু নিষেধাজ্ঞা। কিন্তু সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মহম্মদ বিন সলমন এবার উদ্যোগী হয়েছেন দেশের মধ্যে বেশ কিছু উন্নত সংস্কার করার লক্ষ্যে। কুসংস্কার গুলিকে ত্যাগ করার জন্য উদ্যোগ নিয়েছেন সৌদি প্রিন্স। কয়েকদিন আগেই তিনি নিয়ম জারি করেছেন যে, এবার থেকে দেশের মহিলারাও গাড়ি চালাতে পারবেন যা এতদিন আইন বিরুদ্ধ ছিলো। এই আইন বাতিল করে দেওয়ায় সৌদি প্রিন্সকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন সৌদি আরবের অগণিত মহিলারা।

এবার সৌদি আরবে জারি হয়েছে আরেক নতুন নিয়ম। এবার মসজিদের মাইকের আওয়াজে নিয়ন্ত্রণ জারি করলো সৌদির ইসলাম বিষয়ক মন্ত্রক। উক্ত মন্ত্রকের মন্ত্রী আব্দুল লতিফ আল শেখ জানিয়েছেন যে, “এবার থেকে আজান এবং ইকামত ছাড়া মসজিদে মাইক ব্যবহার করা যাবে না, এবং মসজিদের মাইকের আওয়াজ রাখতে হবে এক তৃতীয়াংশের মধ্যে। অর্থাৎ আওয়াজে নিয়ন্ত্রণ করা হল। সৃষ্টিকর্তা আল্লাহকে নীরবেই ডাকতে হবে। মাইকের আওয়াজে অন্যরা যাতে বিরক্ত না হন তার জন্যেই এই নিয়ন্ত্রণ।”

আরও পড়ুন-শীঘ্রই ভারতীয় সেনাবাহিনীতে অন্তর্ভুক্ত হতে চলেছে ডিআরডিও’র সেরা অস্ত্র।

প্রসঙ্গত নামাজের প্রথম আহ্বান কে বলা হয় আজান এবং নামাজের দ্বিতীয় আহ্বানকে বলা হয় ইকামত।
কিন্তু এই ঘোষণার পর থেকেই সৌদি আরবের বেশ কিছু মানুষজন সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদের ঝড় তুলে দিয়েছেন। সৌদির বেশকিছু নেটিজেন দাবি করছেন যে মসজিদের মাইকের আওয়াজ যদি জনগণের অসুবিধা সৃষ্টি করে তাহলে বিভিন্ন ক্যাফে, রেস্টুরেন্টে তারস্বরে গান বাজানোর ওপর নিয়ন্ত্রণ জারি হওয়া দরকার।