“মুখ্যমন্ত্রী যে ফলকে শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন, তাতে পাঁচটি নাম‌ই পড়ুন।”- অমিত শাহ কে টুইটারে আক্রমণ তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়ানের।

“মুখ্যমন্ত্রী যে ফলকে শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন, তাতে পাঁচটি নাম‌ই পড়ুন।”- অমিত শাহ কে টুইটারে আক্রমণ তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়ানের।

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভোটের চতুর্থ দফা মেটার মধ্যেই রাজ্যজুড়ে হিংসার বাতাবরণে সৃষ্টি হয়েছে। গণতন্ত্রের উৎসবে লেগেছে রক্তের দাগ। কোচবিহারের শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের ঘেরাও করে আক্রমণ করার অভিযোগে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা গুলি চালিয়েছে যার দরুন প্রাণ গিয়েছে ৪ জন তৃণমূল সমর্থকের। এই ঘটনায় গতকাল সারা রাজ্য জুড়ে কালা দিবস পালন করেছে তৃণমূল। ‌

মুখ্যমন্ত্রীকে নির্বাচন কমিশন অনুমতি দেয়নি কোচবিহারে নিহতদের বাড়িতে যাওয়ার জন্য। ভিডিও কলে নিহত তৃণমূল সমর্থক দের পরিবারের সাথে কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ‌ তিনি আশ্বাস দিয়েছেন নিহত তৃণমূল সমর্থক দের পরিবারের পাশে তিনি থাকবেন। ওই একই বুথে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হামলায় প্রাণ গিয়েছে ১৮ বছর বয়সী আনন্দ বর্মনের।বাংলার মাটিতে জনসভায় এসে কোচবিহার কান্ডের প্রসঙ্গে নিজের মতামত ব্যক্ত করেছেন অমিত শাহ।

আরও পড়ুন-নানুরে বিজেপি প্রার্থীকে লক্ষ্য করে গুলিচালনা; কাঠগড়ায় তৃণমূল, বাড়ছে রাজনৈতিক তরজা!

তিনি বলেছেন , “যে বুথে শীতলকুচি কান্ড ঘটেছে, ওই বুথেই সকালে আনন্দ বর্মনের হত্যা করা হয়েছে। ওখানে যাতে ভোট প্রদান আর না হয় সেজন্যই উনাকে হত্যা করা হয়েছে। ওই বুথেই হামলা করা হয়েছে এবং সিআইএসএফ জ‌ওয়ানদের হাতিয়ার লুঠ করার চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী আনন্দ বর্মনের হত্যার বিষয়ে কিছুই বলেননি।”এদিকে তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন আক্রমণ করেছেন অমিত শাহকে। তিনি টুইটারে লিখেছেন যে, “ঠগ, চিটিংবাজ, মিথ্যাবাদী।

আরও পড়ুন-শীতলকুচি তে নিহতদের পরিবারের সাথে ভিডিও কলে কথা বললেন মুখ্যমন্ত্রী। দিলেন পাশে থাকার আশ্বাস।

অমিত শাহ এবং তার চাটুকারদের উদ্দেশ্যে বলছি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে ফলকে শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন, সেই ফলকে পাঁচটি নাম পড়ুন, যাদের আপনার নির্দেশেই গুলিবিদ্ধ হয়ে মরতে হল।”এই ঘটনায় নির্বাচন কমিশন নির্দেশিকা জারি করেছে যে আগামী ৭২ ঘন্টা কোচবিহারের শীতলকুচি তে কোন রাজনৈতিক দলের নেতা-নেত্রীরা যেতে পারবেন না।