নিউজটেক নিউজরাজ্য

ঘাটাল পৌঁছে জলে নেমে বন্যা দূর্গতদের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

নিজস্ব প্রতিবেদন: মারাত্মক বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে ঘাটালে। টানা দুই সপ্তাহ ধরে রাজ্যের মাটিতে ব্যাপক বৃষ্টিপাতের দেখা মিলছে যার জন্য বেশ কিছু নদীতে মারাত্মক হারে জলস্তর বৃদ্ধি পেয়েছে। শীলাবতী নদীর জল বৃদ্ধি পেয়ে ঘাটালের বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। ঘাটালের সাংসদ দেব নিজে কয়েকদিন আগেই ঘাটালে উপস্থিত হয়ে বন্যা পরিস্থিতির পর্যবেক্ষণ করেছেন।

এই পরিস্থিতিতে তিনি ঘাটাল বাসীর পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন। আজ ঘাটাল পৌছেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি গতকাল ঝাড়গ্রাম গিয়েছিলেন। আজ ফেরার পথে তিনি ঘাটালে বন্যা পরিস্থিতির পর্যবেক্ষণ করেছেন।

আরও পড়ুন-জল দিয়ে উনুনে রান্না করে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদ জানানো হল কালীঘাটে।

তাঁর সাথে আজ উপস্থিত ছিলেন ঘাটালের সাংসদ দেব‌ও। রীতিমতো জলে দাঁড়িয়েই মুখ্যমন্ত্রী মানুষের দিকে ভরসার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।আজ ঘাটালে উপস্থিত হয়ে বন্যা পরিস্থিতির পর্যবেক্ষণ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আনুমানিক ১২ টার সময় তিনি ঘাটালের উদ্দেশ্যে র‌ওনা হয়েছিলেন ঝাড়গ্রাম থেকে।

ঘাটালে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচি সম্পন্ন করছেন মুখ্যমন্ত্রী। ঘাটালে বন্যায় বেশ কয়েকজন গ্রামবাসীর মৃত্যু হয়েছে‌। মৃত ব্যক্তিদের পরিবারের সাথে আজ সাক্ষাৎ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঘাটালে এসে তিনি স্থানীয় প্রশাসনের সাথে বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেছেন।

আরও পড়ুন-অঙ্গন‌ওয়াড়ি কর্মী এবং হেল্পার পদে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করলো মহিলা এবং শিশু উন্নয়ন দপ্তর

তিনি বানভাসি মানুষদের সমস্যার কথা শুনেছেন। মুখ্যমন্ত্রী নিজে রাস্তায় নেমে ত্রাণ বিতরণের বিষয়টি তদারকি করেছেন। উপস্থিত মানুষজনকে তিনি আশ্বাস দিয়েছেন যে তিনি এই পরিস্থিতিতে দূর্গতদের সাথে রয়েছেন।তিনি আবার এই বন্যা পরিস্থিতির জন্য সরাসরি ডিভিসির অপরিকল্পিত ভাবে জল ছাড়াকে দোষারোপ করেছেন।

এছাড়াও কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি দোষারোপ করে তিনি বলেছেন,”বহুদিন থেকে পড়ে থাকা ঘাটাল মাস্টারপ্ল্যান কিছুতেই তৈরি করছে না কেন্দ্রীয় সরকার। ‌ রাজ্য থেকে বারবার এই ঘাটাল মাস্টারপ্ল্যান বাস্তবায়িত করার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে, কিন্তু তাতে কর্ণপাত করছে না কেন্দ্রীয় সরকার। খুব শীঘ্রই সৌমেন মহাপাত্র, দেব, জুন মালিয়া, কুণাল ঘোষ প্রভৃতি নেতা-নেত্রীদের কেন্দ্রীয় সেচ মন্ত্রীর সাথে দেখা করতে পাঠানো হবে।”

Related Articles

Back to top button