নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“সম্পত্তি হাতিয়েছে এবার শোভনের প্রাণ নেবে বৈশাখী।”- প্রশাসনের দ্বারস্থ হতে চলেছেন রত্না চট্টোপাধ্যায়।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বর্তমানে বিতর্কের আরেক নাম শোভন বৈশাখী। এই যুগলে বর্তমানে বাংলার জনমানসে ব্যাপক বিতর্কের সূত্রপাত ঘটিয়েছেন। স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায় এবং তাঁর পুত্র কন্যার সাথে সমস্ত সম্পর্ক ত্যাগ করে বর্তমানে গোলপার্কের ফ্ল্যাটে বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে থাকেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। বেহালা পূর্বের তৃণমূল বিধায়ক রত্না চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন যে তিনি তাঁর স্বামী শোভন চট্টোপাধ্যায় কে কখনোই ডিভোর্স দেবেন না।

এদিকে ডিভোর্সের মামলা দায়ের করেছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। গত ১৭ ই মে সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হয়েছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায় সহ তৃণমূলের তিন হেভিওয়েট নেতা। সিবিআই গ্রেফতার করার পরেই স্বামী শোভনের পাশে দাঁড়াতে ছুটে গিয়েছিলেন রত্না চট্টোপাধ্যায়, এছাড়া শোভন অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হ‌ওয়ার সময়েও শোভনের পাশে দাঁড়াতে চেয়েছিলেন রত্না চট্টোপাধ্যায়। সকলেই রত্নার স্বামীর প্রতি কর্তব্যবোধের যথেষ্ট প্রশংসা করেছিলেন।

আরও পড়ুন-বিজেপির দখলে থাকা মালদা জেলা পরিষদে অনাস্থা প্রস্তাব আনল তৃণমূল কংগ্রেস।

কিন্তু মন গলেনি শোভন চট্টোপাধ্যায়ের। বারবার তিনি দূরে সরিয়ে দিয়েছেন স্ত্রী এবং পুত্র-কন্যাকে । গত বুধবার শোভন বলেছেন তিনি তাঁর সমস্ত স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তি বৈশাখীর নামে উইল করে দিয়েছেন। এই ঘটনায় সোশ্যাল মিডিয়ায় শোভন-বৈশাখীর বিরুদ্ধে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন নেটিজেনরা।

আরও পড়ুন-নন্দীগ্রামে ভোটের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আদালতে আবেদন করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। পিছিয়ে গেলো শুনানি।

রত্না চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে লালবাজারে অভিযোগ জানিয়েছেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি পুলিশ কমিশনারের কাছে লিখিত অভিযোগে জানিয়েছেন যে, “রত্না চট্টোপাধ্যায় আমাকে এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়কে হুমকি দিয়ে বলেছেন যে তাঁদের ল্যাম্পপোস্টে বেঁধে পেটাবে।” এর পরেই শোভন এর নিরাপত্তাহীনতা প্রসঙ্গে প্রশাসনের দ্বারস্থ হতে চলেছেন রত্না চট্টোপাধ্যায়। রত্না চট্টোপাধ্যায় দাবি করেছেন, “বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তার স্বামী হানিট্র্যাপে ফেলেছেন শোভনকে।

আরও পড়ুন-“মুখ্যমন্ত্রী ন্যায় চাইছেন ঠিক আছে, কিন্তু নন্দীগ্রামের রায় সঠিক‌ই”- মন্তব্য দিলীপ ঘোষের।

ওদের উদ্দেশ্য ছিল শোভনের সমস্ত সম্পত্তি হাতিয়ে নেওয়া। এবার ওদের উদ্দেশ্য চরিতার্থ হয়েছে, এর পরেই ওরা শোভনকে ওদের পথ থেকে সরিয়ে দেবে। আমি এটা কিছুতেই হতে দিতে পারবো না। নিজের স্ত্রী এবং সন্তান থাকা সত্ত্বেও অন্য একজনকে সম্পত্তির পাওয়ার অফ অ্যাটর্নি কিভাবে করা যায় ? আমি প্রশাসনের সর্বোচ্চ স্তরে আবেদন জানাবো।”

Related Articles

Back to top button