নিউজপলিটিক্সরাজ্য

ক্যামাক স্ট্রিটে অভিষেকের সাথে সাক্ষাৎ করলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। শীঘ্রই কি প্রত্যাবর্তন তৃণমূলে?

নিজস্ব প্রতিবেদন: অবশেষে কি তৃণমূলে প্রত্যাবর্তন করতে চলেছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়? গাঢ় হয়েছে জল্পনা। গতকাল কলকাতার ক্যামাক স্ট্রিটে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অফিসে গিয়েছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। ‌ তাদের মধ্যেই প্রায় আধঘন্টা ধরে পর্যালোচনা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

একুশের বিধানসভা ভোটের আগে দিল্লিতে গিয়ে বিজেপির ছত্রছায়ায় আশ্রয় নিয়েছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। একদা ডোমজুড়ের তৃণমূল বিধায়ক রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপির পতাকা নিয়ে ডোমজুড়ের বিজেপি প্রার্থী পদে আসীন হয়েছিলেন। কিন্তু ডোমজুড়ের মানুষ এই দলবদলু নেতাকে প্রত্যাখ্যান করেছেন। একুশের নির্বাচনে শোচনীয়ভাবে পরাজিত হওয়ার পরেই বিজেপির সাথে তার দূরত্ব অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে।

আরও পড়ুন-“বিজেপি স্বমহিমায় প্রতিষ্ঠিত হবে।”- মুখ ফসকে চাঞ্চল্যকর মন্তব্য মুকুল রায়ের

বিজেপির কোন কর্মসূচিতেই তাকে আর উপস্থিত থাকতে দেখা যায়নি। এর পরেই হঠাৎ বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরই তার তৃণমূলে প্রত্যাবর্তনের বিষয়টি গাড় হয়েছিলো। কিন্তু তার তৃণমূলের প্রত্যাবর্তনের পর ততটা মসৃণ নয় যতটা মুকুল রায়ের ছিল।

ইতিমধ্যেই রাজীবকে তৃণমূলে জায়গা না দেওয়ার দাবি জানিয়ে ডোমজুড়ের একাধিক জায়গায় রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে গদ্দার, বেইমান আখ্যা দিয়ে পোস্টার দেওয়া হয়েছে। এরপর কয়েকদিন আগেই তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষের বাড়িতে গিয়ে তার সাথে দেখা করেছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মা হওয়ার পর তার বাড়িতে গিয়ে সাক্ষাৎ করেছিলেন এবং তাকে সান্ত্বনা দিয়েছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন-“রাজ্যে খুব দ্রুত উপনির্বাচন”- গতকাল নির্বাচনী আধিকারিকের দপ্তরে গেল তৃণমূল

এই আবহে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাক্ষাৎ আরো জল্পনাকে উসকে দিয়েছে যে খুব শীঘ্রই হয়তো রাজীব তৃণমূলের প্রত্যাবর্তন করতে চলেছেন।এই প্রসঙ্গে রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুনাল ঘোষ বলেছেন, “রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপিতে গিয়ে ভুল করেছিলেন সেটা তিনি নিজেও বুঝতে পারছেন। বিজেপিতে উগ্র হিন্দুত্ববাদ সহ্য করে তিনি থাকতে পারছিলেন না। তাকে তৃণমূলে ফিরিয়ে নেওয়া হবে কী না সেই ব্যাপারে দলের সকলে মতামত জ্ঞাপন করবেন।”

Related Articles

Back to top button