কয়েক বছরের মধ্যে বাড়িতে বাড়িতে পৌঁছে যাবে বিশুদ্ধ পানীয় জল, ‘জলস্বপ্ন’ প্রকল্পের ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী

বর্তমানে বাংলায় তথা দেশের মধ্যে স-ন্ত্রাসের ঘোর রাজত্ব চালাচ্ছে করোনা। প্রতিদিনই মৃ-ত্যু হচ্ছে অনেক মানুষের। মৃ-ত্যুভ-য়কে বি-ভী-ষি-কাময় সঙ্গী করে নিরন্তর জীবনের সাথে ল-ড়াই করে চলেছে মানুষজন। সকলেই স্বপ্নয়য় চোখে চেয়ে রয়েছে সেই স্বাভাবিক দিনগুলি ফেরার অপেক্ষায়।আগামী ২০২১ এ রয়েছে বিধানসভা নির্বাচন। এই নির্বাচন কেই পাখির চোখ করে এবার কর্মসূচি পরিচালনা করছে রাজ্য তৃণমূল নেতৃত্ব।

বিরোধী দলগুলিও এই নির্বাচনকে হাতে রেখেই তাদের ঘুঁটি সাজাচ্ছে। বর্তমান এই আবহে রাজ্য সরকার জনসাধারণের জন্য অনেক প্রকল্পের সূচনা করছে।বাংলার বেশ অনেক জায়গাতেই পরিশ্রুত পানীয় জল পাওয়া একটি বড়ো সমস্যা। অনেক জায়গাতেই আর্সেনিক যুক্ত বি-ষা-ক্ত জল মেলে। আবার অনেক জায়গার বাসিন্দাদের অনেক দূরে গিয়ে পানীয় জল নিয়ে আসতে হয়। সবথেকে বেশী কষ্টটা জ্ব-লন্ত হয় প্রখর গ্রীষ্মে।

আরও পড়ুন-এশিয়ার বৃহত্তম সোলার প্ল্যান্টের উদ্বোধন করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী

পানীয় জলের অভাব লক্ষিত হয় সেইসময় গোটা রাজ্য তথা দেশজুড়ে। এবার এই পানীয় জলের সংকট মেটানোর লক্ষ্যেই নতুন একটি প্রকল্প চালু করতে চলেছে রাজ্য সরকার। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের এই পানীয় জলের প্রকল্পটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘জলস্বপ্ন’। এর জন্য খরচ নির্ধারণ করা হয়েছে প্রায় ৫৮ হাজার কোটি টাকা। এই প্রকল্পের ফলে গ্রামীণ এলাকাগুলোতে বি- শুদ্ধ পানীয় জল সরবরাহ করা হবে

আরও পড়ুন-আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত স্বজনপোষণের টাকার সমস্তটাই ফেরত দিলো শাসকদল, স্পষ্ট হলো দুর্নীতি!

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, “এই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে, রাজ্যের প্রায় ২ কোটি মানুষের পরিবারে বিশুদ্ধ পানীয় জলের পাইপ লাইন স্থাপন করা হবে। এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে আগামী ৫ বছরের মধ্যেই।” বিধানসভা নির্বাচনের আবহে এই প্রকল্পের ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে তৃণমূলের পাল্লা আরেকটু ভারী করে দিতে পারে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। তৃণমূল নেতৃত্ব বলেছে যে এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে রাজ্যে অসংখ্য কর্মসংস্থানের‌ও সুযোগ তৈরি হবে।

এখানে আপনার মতামত জানান