নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“এখনই চালু করা যাবেনা গণপরিবহন। গাড়ির ব্যবস্থা করেই খুলতে হবে অফিস।”- জানালেন ফিরহাদ হাকিম

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাজ্যে জারি রয়েছে করোনা আবহে বেশ কিছু বিধিনিষেধ। এই বিধিনিষেধ জারি থাকবে আগামী ১ লা জুলাই পর্যন্ত। এমনটাই ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে এই বিধিনিষেধে বেশ কিছু শিথিলতা দেওয়া হয়েছে।

বেসরকারি অফিসগুলো খুলে রাখার অনুমতি দেওয়া হয়েছে তবে তাদের ২৫% কর্মী নিয়ে কাজ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু যেহেতু গণপরিবহন ব্যবস্থা চালু হয়নি তাই এখনও পর্যন্ত কর্মীদের অফিসে নিয়ে আসার এবং নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট অফিসগুলোকে নিতে হবে বলে নির্দেশিকা দিয়েছে রাজ্য সরকার। এদিকে বেশকিছু অফিস তাদের কর্মীদের নিয়ে আসার দায়িত্ব নিতে রাজি হচ্ছে না, এই মর্মে বহু মানুষ আবেদন জানিয়েছেন রাজ্যের কাছে যে অবিলম্বে ট্রেন এবং বাস পরিষেবা শুরু করলে তারা উপকৃত হবে।

আরও পড়ুন-সরকারি অনুষ্ঠানে অনুব্রত মন্ডলের পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করলেন আউশগ্রামের বিডিও।

কিন্তু বর্তমানে করোনার এই ভয়াবহ আবহে এখনই গণপরিবহন ব্যবস্থা চালু করতে রাজি নয় রাজ্য সরকার। বেসরকারি অফিস গুলি খুলে রাখা যাবে সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৪ টে পর্যন্ত। রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেছেন,”যানবাহনের ব্যবস্থা করেই বেসরকারি সংস্থাগুলিকে তাদের অফিস খুলতে হবে, তারা যদি চায় তাহলে সরকারি বাস তাদেরকে ভাড়া দেওয়া হবে। অফিস খুলতে যারা যারা রাজ্য সরকারের কাছে সহযোগিতা চাইছে তাদেরকে বিভিন্ন ভাবে আমরা সহযোগিতা করছি।

আরও পড়ুন-“আগের যিনি সেচমন্ত্রী ছিলেন তিনি কোনো কাজ করেননি।”- কলকাতার জল জমার কারণ হিসাবে পূর্ব সেচমন্ত্রীদের ঘাড়ে দায় চাপালেন ফিরহাদ হাকিম।

তবে অফিস গুলিকে কর্মীদের যাতায়াতের ব্যবস্থা করেই অফিস খোলা রাখতে হবে। আমরা ন্যূনতম নির্ধারিত ভাড়ায় সরকারি বাসগুলো ভাড়া দিচ্ছি অফিস গুলিকে। রাজ্যে যতদিন না পর্যন্ত বেশিরভাগ মানুষের টিকাকরণ না হচ্ছে ততদিন পর্যন্ত গণপরিবহন আমাদের বন্ধ রাখতে হবে। না হলে আবার ভয়াবহভাবে বাড়বে করোনার দাপট”

Related Articles

Back to top button