নিউজপলিটিক্সরাজ্য

জামালপুরে বিক্ষোভ গাঢ় হচ্ছে সুনীল মন্ডলের বিরুদ্ধে। রাবণ বানিয়ে দেওয়া হল পোস্টার

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিজেপিতে আসা দলবদলু নেতারা আবার তৃণমূল মুখো হচ্ছেন। ইতিমধ্যেই মুকুল রায় কে ফিরিয়ে নিয়েছে তৃণমূল। কিন্তু রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলে যোগ দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করলেও তার বিরুদ্ধে প্রবল বিক্ষোভ দেখাচ্ছে তৃণমূল সমর্থক রা। ঠিক একই রকম পরিস্থিতি হয়েছে বর্ধমানের জামালপুরের বিজেপি নেতা সুনীল মন্ডলের বিরুদ্ধে।

বিজেপি সাংসদ সুনীল মন্ডলের বিরুদ্ধে ফ্লিক্স ছাপিয়ে টাঙ্গানো হয়েছে বর্ধমানের শুঁড়েকালনায়। এই ফ্লেক্সে সুনীল মন্ডলকে দেখানো হয়েছে রাবণ রূপে।প্রসঙ্গত কয়েকদিন আগে বিজেপির শীর্ষ নেতাদের একহাত নিয়েছিলেন সুনীল মন্ডল। তারপরেই তার বিজেপিতে ফেরার সম্ভাবনা আরো গাঢ় হয়।

আরও পড়ুন-“টিএমসি সেটিং মাস্টার”- কৈলাস বিজয়বর্গীয় নামে পোস্টার লাগালো দলের‌ই কর্মী সমর্থকরা।

কিন্তু বিজেপি সাংসদ সুনীল মণ্ডল কে তৃণমূলে আবার ফিরিয়ে নিতে যথেষ্ট আপত্তি জাহির করে আসছেন অগণিত তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা। সকলেই সুনীল মন্ডলের বিরুদ্ধে তীব্র বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। জামালপুরে যে পোস্টার টাঙানো হয়েছে তাতে সুনীল মণ্ডল কে দেখানো হয়েছে যে তিনি রাবণ এবং তাঁর দশটি মাথা রয়েছে। বাকি মাথা গুলি বিভিন্ন বিজেপি নেতাদের।

আরও পড়ুন-মুকুল রায়ের বিধায়ক পদ খারিজের দাবিতে আজ বিধানসভার স্পিকারকে চিঠি দিলেন শুভেন্দু অধিকারী।

নীচে লেখা রয়েছে , ‘বাংলা এবং বাঙালির শত্রু।’তারপরেই ওই পোস্টারে লেখা রয়েছে, “রাজনীতির ব্যাপারী, নীতি, আদর্শহীন, গিরগিটি, গদ্দার সুনীল মন্ডলের তৃণমূলের ঠাঁই নেই। তৃণমূল নেত্রীর কাছে আবেদন গদ্দার সুনীল মন্ডলকে তৃণমূল কংগ্রেসের ঠাঁই দেওয়া না হয়।”এই প্রসঙ্গে জেলা তৃণমূল সম্পাদক প্রদীপ পাল বলেছেন, “এলাকার মানুষের জনসমর্থন নিয়ে তিনি সাংসদ হয়েছিলেন, তার পরই তিনি বিজেপিতে যোগদান করেছেন।

আরও পড়ুন-কেন বৈশাখীকে সমস্ত সম্পত্তির মালিকানা দিয়েছেন? জানালেন শোভন

এমনকি বিজেপিতে যোগদান করে তৃণমূল নেত্রী এবং অন্যান্য তৃণমূল নেতাদের কদর্য ভাষায় অপমান করেছেন। এখন তৃণমূলে ফিরে আসতে চাইছেন বলে শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলেছেন। কিন্তু আমাদের দলের কর্মী সমর্থক না তাকে দলে ফিরিয়ে নিতে ইচ্ছুক নয়। তাই এই পোস্টারের মাধ্যমে তারা প্রতিবাদ জানিয়েছেন।”

বর্ধমান জুড়ে তৃণমূল কর্মীরা নিরন্তর বিক্ষোভ দেখিয়ে চলেছে সুনীল মন্ডলের বিরুদ্ধে। তবে এই প্রসঙ্গে সুনীল মন্ডলকে ফোন করা হলে তিনি ফোন ধরেননি।

Related Articles

Back to top button