নিউজঅফবিটরাজ্য

নিউটাউন কান্ডে মোহালি থেকে সুমিত কুমারকে গ্রেফতার করলো পুলিশ।

নিজস্ব প্রতিবেদন: নিউটাউনে সুখবৃষ্টি আবাসনে রাজ্য পুলিশের এসটিএফের সাথে গুলি লড়াইয়ে নিহত হয়েছে কুখ্যাত দুই গ্যাংস্টার জয়পাল এবং জসসি। কুখ্যাত এই দুষ্কৃতীদের নিউটাউনের এই ফ্ল্যাট বুক করে দিয়েছিল আরেক দুষ্কৃতী ভরত কুমার। ভরত কুমার জাল আধার কার্ড এবং প্যান কার্ড দেখিয়ে এই ফ্ল্যাট বুক করে ছিল জয়পাল দের জন্য। জানা গিয়েছে ভরত কুমার তার সচিত্র পরিচয় পত্র সুমিত কুমার নামে আধার কার্ড এবং প্যান কার্ড দেখিয়েছিল ।

ফ্ল্যাট ভাড়ার চুক্তি পাকা করে নিয়ে হরিয়াণায় ফিরে গিয়েছিলো ভরত কুমার। সুমিত কুমারের নামে সমস্ত কাগজপত্র দেখানো হলেও আদৌ সুমিত কুমার নামে কেউ নেই, যে সুমিত কুমার সেই আসলে ভরত কুমার।ভরত কুমারের সাথে জয়পালদের রীতিমতো ওঠাবসা ছিলো। হরিয়াণার রোহতকে থাকে এই ভরত কুমার।

আরও পড়ুন-ভারত- বাংলাদেশ সীমান্তে ধৃত চীনা নাগরিক কে ভয়ঙ্কর অপরাধী তকমা বিএস‌এফের।

এই ভরত কুমার‌ই জয়পাল এবং জসসিকে কলকাতায় নিয়ে এসেছিলো। ভুয়ো পরিচয় পত্র তৈরি করিয়েছিলো নিজেদের। জয়পালের জাল পরিচয়পত্রে নাম ছিলো রাজীব এবং জসপ্রীতের পরিচয়পত্রে নাম হয় ভূষণ কুমার। ভরত কুমার নিউটাউনের এক হোটেলে ভাড়া ছিলো , আর অন্য হোটেলে ভাড়া ছিলো জয়পাল।

আরও পড়ুন-ভোট-পরবর্তী হিংসায় রাজ্যে আক্রান্ত হয়েছে শিশুরা।”- রাজ্যের ডিজিকে কড়া চিঠি দিলো জাতীয় শিশু সুরক্ষা কমিশন।

নিউটাউনের ওই ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে ভরত কুমার ফ্ল্যাট মালিককে বলেছিলো যে দুইজনের চাকরি সূত্রে কলকাতায় পোস্টিং হয়েছে।এই ভরত কুমার ওরফে সুমিত কুমারকে হন্যে হয়ে খুঁজছিলো পুলিশ। অবশেষে জানা গিয়েছে, মোহালি থেকে সুমিত কুমারকে গ্রেফতার করেছে পাঞ্জাব পুলিশ। নিউ টাউনের ওই ফ্ল্যাটে ফরেনসিক রিপোর্টে দেখা গিয়েছে তৃতীয়জনের আঙ্গুলের ছাপ রয়েছে ।

আরও পড়ুন-রেশন কার্ডের সাথে আধার কার্ড সংযুক্ত করলে রাজ্যের সর্বত্র মিলবে রেশন।

পুলিশ প্রমাণ করছে এই তৃতীয় ফিঙ্গারপ্রিন্ট হতে পারে সুমিত কুমারের। হরিয়াণার বাসিন্দা সুমিত কুমার‌ই ওই ফ্ল্যাট জয়পালদের দেখে দিয়েছিলো। সুমিত কুমার কে গ্রেফতার করে তাকে জেরা করে আরো তথ্য জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।

Related Articles

Back to top button