“মুখ্যমন্ত্রীর কথা বিশ্বাস করে না পশ্চিমবঙ্গের মানুষ”- মুখ্যমন্ত্রীকে তোপ দাগলেন বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ।

“মুখ্যমন্ত্রীর কথা বিশ্বাস করে না পশ্চিমবঙ্গের মানুষ”- মুখ্যমন্ত্রীকে তোপ দাগলেন বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ।

নিজস্ব প্রতিবেদন: ক্রমশ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে বাংলার রাজ্য রাজনীতি। ‌ একুশের ভোট দিয়ে বিভিন্ন জায়গা থেকে উঠে আসছে হিংসা হানাহানির প্রতিচ্ছবি। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকজন মানুষের অমূল্য প্রাণ চলে গিয়েছে বুলেটের আঘাতে। ‌ জায়গায় জায়গায় বিজেপি এবং তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা একে অপরের উপর আক্রমণ করছেন। পার্টি অফিস ভাঙচুর করা হচ্ছে, প্রার্থীদের রোড শো জনসভায় হামলা করা হচ্ছে, গণতন্ত্রকে যেন পায়ের নীচে পিষে মারা হচ্ছে।

রাজনৈতিক সংগঠনের নেতা নেত্রীরা ক্রমাগত একে অপরের দিকে ছুঁড়ে দিচ্ছেন তীক্ষ্ণ বাক্যবাণ। কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি তে মত্ত হয়ে রয়েছেন তাঁরা। কোচবিহারের শীতলকুচি তে পাঁচজন মানুষের প্রাণ গিয়েছে।আজ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোচবিহারের শীতলকুচি তে গিয়ে নিহত ব্যক্তিদের পরিবারের সাথে কথা বলে দোষী ব্যক্তিদের শাস্তির আশ্বাস দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। ‌ আনন্দ বর্মনের দাদুর সাথেও কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন-“এখনো পর্যন্ত ছোটো দোকানদারেরা জিএসটি বুঝতে পারছেন না”- গোয়ালপোখরের জনসভা থেকে বিজেপিকে বিঁধলেন রাহুল গান্ধী

এই ঘটনা প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে কটাক্ষ করেছেন বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার।জয়প্রকাশ বাবু বলেছেন, “মুখ্যমন্ত্রী কথা পশ্চিমবঙ্গবাসী বিশ্বাস করে না আর। ২১ শে জুলাই প্রায় ১৪ জন মানুষকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিল। ক্ষমতায় ওই ঘটনায় দোষীদের শাস্তি দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

‌ কিন্তু শাস্তি দেয়া তো দূরের কথা ক্ষমতায় আসার পর ওই ঘটনার সঙ্গে জড়িত দোষী পুলিশ আধিকারিকদের নিজের মন্ত্রিসভায় জায়গা দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী, আবার তাদের পুরস্কৃত করেছিলেন। ‌ একই ঘটনার অবতারণা হয়েছিল নন্দীগ্রামেও। নন্দীগ্রামে মানুষ খুনে জড়িত অফিসার কে নিজের দলে জায়গা দিয়েছেন। তাই মুখ্যমন্ত্রী শীতলকুচির ঘটনা সম্পর্কে কি করবেন তা বাংলায় মানুষ ভালোভাবেই বুঝতে পারছে।”