নিউজঅফবিটদেশ

পুলিশে নিযুক্ত হতে পারবেন তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিরাও। জারি হল নির্দেশিকা।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সমাজ তাঁদের এতদিন দূরে সরিয়ে রেখেছিলো। রাজনৈতিক ক্ষেত্রে, শিক্ষাক্ষেত্রে, সামাজিক ক্ষেত্রে তাঁদের কোনো অধিকার দেওয়া হয়নি। পড়াশোনা করে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হ‌ওয়ার স্বপ্ন দেখতেন তাঁরাও। কিন্তু বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিলো সমাজ।

কিন্তু আস্তে আস্তে উন্নত হয়েছে মানুষের মানসিকতা। সেইসাথে প্রশাসন অন্ধকারে থাকা তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ গুলিকেও আলোতে নিয়ে আসতে সচেষ্ট হয়েছে। শিক্ষাক্ষেত্রে, রাজনৈতিক ক্ষেত্রে, এবং অন্যান্য ক্ষেত্রে এবার তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিদের নিয়োগ করা হচ্ছে। এবার যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত নিলো ওড়িশা সরকার।

আরও পড়ুন-বাংলায় ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস আবহাওয়া দপ্তরের। বিভিন্ন জেলায় ভারী বর্ষণের ইঙ্গিত।

ওড়িশা পুলিশের কনস্টেবল এবং সাব ইন্সপেক্টর পদে নিয়োগ করা হবে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের‌ও। গত শনিবার এই মর্মে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে ওড়িশা প্রশাসন। কটকে একটি সাংবাদিক সম্মেলনে ওড়িশা পুলিশের ডিজি জানিয়েছেন যে, “ওড়িশার মাটিতে এই প্রথমবার পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর এবং কনস্টেবল পদে আবেদন করতে পারবেন তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিরা। তবে বিশেষভাবে সক্ষম যে সমস্ত ব্যক্তি তাঁরা এই পদে আবেদন করতে পারবেন না।

আরও পড়ুন-“চালু করুন এক দেশ এক রেশন কার্ড।”- রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট।

পুলিশের টেকনিক্যাল বিভাগে নেওয়া হবে কনস্টেবল।এই পদে নিয়োগের জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা চাওয়া হয়েছে গ্রাজুয়েট। ‌ সাব-ইন্সপেক্টর পদে গ্রাজুয়েট হলে তার আবেদন করতে পারবেন এবং কনস্টেবল পদের জন্য থাকতে হবে কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশন এর ডিপ্লোমা। এছাড়াও শারীরিক এবং দক্ষতা মূলক পরীক্ষাও নেওয়া হবে তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিদের।

আরও পড়ুন-শাহরুখ খানের সাথে মান্নাতে দেখা করলেন তৃণমূলের ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোর। তুঙ্গে জল্পনা।

জানা গিয়েছে কনস্টেবল এর জন্য শূন্য পদ রয়েছে ২৪৪ এবং সাব-ইন্সপেক্টর পদের জন্য শূন্য পদ রয়েছে ৪৭৭ টি।ওড়িশা সরকারের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে অন্যান্য রাজ্য সরকার গুলি ও। ওড়িশা সরকারের এই পদক্ষেপকে সকলেই যথেষ্ট প্রশংসা করেছে। এই ঘোষণায় খুবই খুশি হয়েছেন তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিরা।

তাঁরাও এবার স্বপ্ন দেখছেন অন্যান্য স্বাভাবিক মানুষের মতোই সমাজে মাথা উঁচু করে বেঁচে থাকার।

Related Articles

Back to top button