“আগে মানুষগুলোকে বাঁচাতে হবে।”- জলমগ্ন ঘাটাল ঘুরে দেখলেন তৃণমূল সাংসদ দেব

“আগে মানুষগুলোকে বাঁচাতে হবে।”- জলমগ্ন ঘাটাল ঘুরে দেখলেন তৃণমূল সাংসদ দেব

নিজস্ব প্রতিবেদন: কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে জলমগ্ন হয়ে পড়েছে পশ্চিম মেদিনীপুর ঘাটাল। বন্যা কবলিত এলাকায় মানুষের দূর্ভোগ পৌঁছেছে চরমে। এই পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে জলমগ্ন এলাকায় গিয়েছিলেন তৃণমূল সাংসদ দেব। ঘাটালের ঝুমি নদীর উপর মনসুখা এলাকার সেতু জলের চাপে ভেঙে গিয়েছে।

ঘাটাল টাউনেও ঢুকে গিয়েছে জল। ওই এলাকাতে পরিদর্শনে গিমেছিলেন তৃণমূল সাংসদ দেব। গতকাল মঙ্গলবার ঘাটালের জলমগ্ন এলাকাগুলি পরিদর্শন করেছেন অভিনেতা তথা সাংসদ দেব। তাঁর সাথে উপস্থিত ছিলেন জেলাশাসক রশ্নি কোমল, জেলা পরিষদের সহ-সভাপতি অজিত মাইতি এবং পুলিশ সুপার দিনেশ কুমার।

আরও পড়ুন-তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্য ভ্যাকসিন এর ব্যবস্থা করলেন মিমি চক্রবর্তী

তারা সমস্ত পরিস্থিতি সরজমিনে খতিয়ে দেখেছেন। পাশাপাশি দুর্গত মানুষদের হাতে ত্রাণ দিয়েছেন দেব। প্রিয় অভিনেতা তথা সাংসদ কে দেখার জন্য ভিড় জমিয়েছিলেন অগণিত মানুষ জন। তিনি উপস্থিত মানুষদের সকলকে নির্দিষ্ট শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার অনুরোধ করেন।

বন্যা কবলিত এলাকা গুলি নৌকায় চেপে পরিদর্শন করেছেন অভিনেতা। ‌ তার পরেই তিনি ঘাটালের মহকুমা শাসকের দপ্তরে একটি বৈঠকে অংশগ্রহণ করেছিলেন। বন্যা কবলিত এলাকার পরিস্থিতি মোকাবিলার প্রসঙ্গে তিনি এই বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন দেব বলেছেন, “এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে এখন রাজনীতি করার প্রয়োজন নেই এবং এটা রাজনীতি করার সময় নয়। এই পরিস্থিতি কেন হয়েছে এটা আমি বলতে পারতাম কিন্তু এখন বলতে চাই না।

আরও পড়ুন-লকডাউনের আবহে নাতনির মুখে খাবার তুলে দিতে রাস্তায় বেহালা বাজাচ্ছেন বৃদ্ধ। খবর পেয়েই দেখা করে সাহায্যের আশ্বাস দিলেন রাজ চক্রবর্তী।

ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান নিয়ে আমি বহুবার কেন্দ্রের কাছে চিঠি পাঠিয়েছি কিন্তু এখনো পর্যন্ত কোনো উত্তর পাইনি। এখন আমার একটাই লক্ষ্য মানুষ গুলোকে কিভাবে বাঁচিয়ে রাখা যায়। যাদের বাড়িঘর ভেঙ্গে পড়েছে তাদের নামের তালিকা আমি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পাঠাব। অনেক বাড়িঘর ভেঙ্গে পড়েছে, বহু জায়গায় এখনও জল জমে আছে।

অনেকেই ত্রাণ শিবিরে থাকতে চাইছেন না কিন্তু যে রকম পরিস্থিতি হয়ে রয়েছে তাদেরকে এখনও ত্রাণ শিবিরে থাকতে হবে।”