নিউজবিনোদন

প্রকাশ্যে এলো নুসরতের বেবি বাম্প। কে সন্তানের পিতা ? জল্পনা আরো তুঙ্গে।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বসিরহাটের তৃণমূল সাংসদ নুসরতের সাথে যশের সম্পর্কের কথা সকলের‌ই কাছে প্রকাশিত হয়েছে। নুসরতের স্বামী নিকিল জৈন বলেছেন যে, তিনি অনেকদিন হল নুসরতের সাথে থাকেন না, এমনকি তিনি এটাও বলেছেন যে নুসরতের সন্তানের বাবা তিনি নন। এছাড়াও নিখিল বলেছেন যে, ১০ ই সেপ্টেম্বর নুসরত মা হবেন। কিন্তু নিজের মাতৃত্ব প্রসঙ্গে এখনো কোনো মন্তব্য করেননি নুসরত।

তবে তিনি নিকিলের সাথে বিবাহের বিষয়ে মুখ খুলেছেন, নুসরত বলেছেন, “আমার সাথে নিখিলের তুরস্কে বিয়ে হয়েছিলো। তুরস্কের বিবাহ নিয়ম অনুযায়ী আমাদের এই বিয়ে অবৈধ। ভারতীয় বিবাহ আইনানুযায়ী এই বিয়েটা বৈধ নয়। এটাকে লিভ-ইন রিলেশনশিপ বলা যেতে পারে।

আরও পড়ুন-টি-শার্ট এবং শর্ট প্যান্টে ভাইরাল শ্রীলেখার ছবি। ট্রোলিং শুরু হলো ব্যাপকভাবে।

তাই এখানে ডিভোর্সের কোনো প্রসঙ্গ উত্থাপিত হ‌ওয়ার কথা নয়। বহু আগেই আমি বিচ্ছেদ করে দিয়েছি। আইনের চোখে আমাদের বিয়েটা বিয়ে নয়। এটা লিভ ইন রিলেশনশিপ।”

ভোটের আগে নুসরত জাহানের পেশ করা হলফনামায় দেখানো হয়েছে তিনি ২০০৮ সালে ভবানীপুর গুজরাটি এডুকেশনাল সোসাইটি থেকে উচ্চমাধ্যমিক উত্তীর্ণ হয়েছেন। কিন্তু লোকসভার ওয়েবসাইটে দেখানো হয়েছে যে নুসরতের শিক্ষাগত যোগ্যতা হল বি.কম অনার্স। এই দুই জায়গাতে ভিন্ন তথ্য থাকায় আবার বিস্তর গরমিলের অভিযোগ উঠেছে নুসরতের বিরুদ্ধে।গত ২০১৯ সালে বিজেপি প্রার্থী সায়ন্তন বসু কি লক্ষাধিক ভোটে হারিয়ে বসিরহাটের সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন নুসরত জাহান।

আরও পড়ুন-“আগে প্রধানমন্ত্রীর অতীতটা দেখুন।”- নুসরত প্রসঙ্গে বললেন কুণাল ঘোষ।

কিন্তু তার জীবনে চড়াই উতরাই এবং সিক্রেট বিষয়বস্তু দেখা গিয়েছে বহুবার। প্রকাশ্যে এসেছে নুসরাতের বেবি বাম্পের ছবি।জানা গিয়েছে নুসরাতের বাড়িতে আড্ডা দিচ্ছিলেন তার অন্যতম প্রিয় বান্ধবী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় , তনুশ্রী চক্রবর্তী। সেখানেই এক ফেমে ক্যামেরাবন্দি হন তাঁরা।

আরও পড়ুন-“হলফনামায় শিক্ষাগত যোগ্যতা উচ্চমাধ্যমিক। অথচ লোকসভার ওয়েবসাইটে অনার্স গ্র্যাজুয়েট।”- আবার সামনে এলো নুসরতের গরমিল।

আর এই ছবিতেই স্পষ্ট হয়েছে নুসরতের বেবি বাম্প।কিন্তু এখনো পর্যন্ত নুসরত তাঁর মাতৃত্ব নিয়ে কোনো কথাই বলেননি। সন্তানের পিতা যে যশ হতে পারেন একথাই বলছেন অনেকেই। নিখিল আগেই অস্বীকার করেছেন যে তিনি এই সন্তানের পিতা নন।

Related Articles

Back to top button