নিউজপলিটিক্সবিনোদনরাজ্য

সংসদে অবৈধ বিয়ে বাতিলের প্রতিলিপি জমা দিলেন নুসরত। আবার সূত্রপাত নতুন বিতর্কের

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাংলার রাজ্য রাজনীতিতে নতুন সংযোজন নুসরতের বৈবাহিক বিষয়। বসিরহাটের তৃণমূল সাংসদ নুসরতের সাথে তাঁর স্বামী নিখিল জৈনের বিবাহ কতটা বৈধ আর অবৈধ এই নিয়ে শুরু হয়েছে তরজা। নুসরতের স্বামী নিখিল জৈন বলেছেন যে, তিনি অনেকদিন হল নুসরতের সাথে থাকেন না, এমনকি তিনি এটাও বলেছেন যে নুসরতের সন্তানের বাবা তিনি নন। এছাড়াও নিখিল বলেছেন যে, ১০ ই সেপ্টেম্বর নুসরত মা হবেন।

কিন্তু নিজের মাতৃত্ব প্রসঙ্গে এখনো কোনো মন্তব্য করেননি নুসরত। তবে তিনি নিখিলের সাথে বিবাহের বিষয়ে মুখ খুলেছেন, নুসরত বলেছেন, “আমার সাথে নিখিলের তুরস্কে বিয়ে হয়েছিলো। তুরস্কের বিবাহ নিয়ম অনুযায়ী আমাদের এই বিয়ে অবৈধ। ভারতীয় বিবাহ আইনানুযায়ী এই বিয়েটা বৈধ নয়।

আরও পড়ুন-কাঞ্চন মল্লিকের স্ত্রীর গাড়ি আটকে দাঁড়িয়ে শ্রীময়ী। ভাইরাল ভিডিও।

এটাকে লিভ-ইন রিলেশনশিপ বলা যেতে পারে। তাই এখানে ডিভোর্সের কোনো প্রসঙ্গ উত্থাপিত হ‌ওয়ার কথা নয়। বহু আগেই আমি বিচ্ছেদ করে দিয়েছি। আইনের চোখে আমাদের বিয়েটা বিয়ে নয়।

এটা লিভ ইন রিলেশনশিপ।” এই আবহে বসিরহাটের সাংসদ নুসরত জাহানের বিরুদ্ধে বিবাহ নিয়ে লোকসভায় ভুল তথ্য দেওয়ার অভিযোগে বিধানসভার স্পীকারের দ্বারস্থ হয়েছেন উত্তরপ্রদেশের বদায়ুনের বিজেপি সাংসদ সংঘমিত্রা মৌর্য। তিনি একটি চিঠির সাথে নুসরতের লোকসভা প্রোফাইল জুড়ে দিয়ে অভিযোগ করেছেন,”লোকসভায় যখন শপথ গ্রহণ করেছিলেন তখন নুসরত নিজের নাম উল্লেখ করেছিলেন নুসরত জাহান রুহি জৈন। শাড়ি, শাঁখা সিঁদুর পরে শপথ নিয়েছিলেন তিনি।

আরও পড়ুন-“বিজেপি করার প্রায়শ্চিত্ত করলাম।”- মাথা ন্যাড়া হয়ে বিজেপি থেকে তৃণমূলে যোগদান ৫০০ জন কর্মীর।

কিন্তু এখন তিনি যা বলছেন তা আগের ঘটনার সাথে মিল খাচ্ছে না। তিনি লোকসভায় সম্পূর্ণ ভুল তথ্য দিয়েছেন, এর ফলে তাঁর অবিলম্বে শাস্তি হ‌ওয়া উচিৎ।”এদিকে পাল্টা নুসরত দাবি করেছেন যে তিনি নাকি দুই সপ্তাহ আগেই ম্যারেজ অ্যানালমেন্টের প্রতিলিপি জমা দিয়েছেন লোকসভায়। তাই এবার বিতর্কের সূত্রপাত হয়েছে যে যখন নুসরত নিজেই দাবী করেছেন রে তাঁর বিয়ে অবৈধ, তাহলে তিনি এই ম্যারেজ অ্যানালমেন্টের প্রতিলিপি কিভাবে জমা দিলেন? সংঘমিত্রা মৌর্য বলেছেন, ‘এই বিষয়ে লোকসভার এথিকস্ কমিটি তদন্ত করে দেখুক।’

Related Articles

Back to top button