নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“সিঁদুর পরে ভারতীয় সংস্কৃতির অপমান করেছে নুসরত”- কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাংলার রাজনৈতিক আবহাওয়া উত্তাল হয়ে রয়েছে নুসরতের বৈবাহিক জটিলতায়। নুসরত তাঁর বিয়েকে অবৈধ বলে ঘোষণা করেছেন। কিন্তু লোকসভায় তাঁর হলফনামায় দেখা গিয়েছে তাঁর নাম দেওয়া রয়েছে নুসরত জাহান রুহি জৈন। তিনি নিজে বলেছেন নিখিলের সাথে তাঁর বিয়েটা অবৈধ কারণ তাঁদের বিয়ে ভারতে হয়নি।

এদিকে তাঁর এই মন্তব্যের পরেই যথেষ্ট জলঘোলা হয়েছে রাজ্যের রাজনৈতিক প্রাঙ্গনে। আইনজীবী জয়ন্ত নারায়ন চট্টোপাধ্যায় বলেছেন, “নুসরত নিজে সাংসদে নিজেকে বিবাহিত দেখানোর পরে তিনি কিভাবে বললেন যে তাঁর বিয়ে অবৈধ? একজন জননেত্রী কিভাবে এতটা মিথ্যা বলতে পারেন?”এদিকে মিথ্যা বলার জন্য নুসরতের শাস্তির দাবী জানিয়ে লোকসভার স্পীকারের দ্বারস্থ হয়েছেন বেশ কয়েকজন বিজেপি নেতা নেত্রীরা।

আরও পড়ুন-এবার বেসুরো হয়ে উঠলেন সিপিএম থেকে পদ্মফুলে আসা রিঙ্কু নস্কর।

বিজেপি নেত্রী সংঘমিত্রা মৌর্য নুসরতের শাস্তির দাবীতে সরব হয়েছেন। আবার তার উপর নুসরতের মাতৃত্ব ঘিরেও উঠেছে জল্পনা। নুসরতের সন্তানের পিতা যে নিখিল নন তিনি একথা আগেই জানিয়েছিলেন। অনেকেই বলছেন যে নুসরতের এই সন্তানের পিতা হলেন তাঁর প্রেমিক অভিনেতা যশ।

আরও পড়ুন-“আলাপনের মত একজন সৎ অফিসার দেখান। আমরা ওকে পূর্ণ সহযোগীতা করব।”- মন্তব্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

২০১৯ সালে নিখিল জৈনের সাথে ধুমধাম করে বিয়ে হ‌ওয়ার পর এখন নুসরত বলছেন যে তাঁরা নাকি এতদিন লিভ ইন করেছেন।এবার নুসরতকে আক্রমণ করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেছেন, “লোকসভায় সিঁদুর পরে উপস্থিত হয়েছিলেন তিনি। সিঁদুর পরে স্বামীর পরিচয় দিয়েছিলেন, সেই তিনিই এখন বলছেন তাঁর বিয়ে অবৈধ।

ভারতীয় সংস্কৃতি কে অপমান করেছেন নুসরত। তাঁর বিয়েতে মুখ্যমন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন। একজন সাংসদ হয়ে তিনি ভারতীয় সংস্কৃতিকে অপমান করেছেন।”

Related Articles

Back to top button