আইএস‌এফ নিয়ে অধীর চৌধুরীর মন্তব্যের পাল্টা প্রতিক্রিয়া দিলেন ন‌ওশাদ সিদ্দিকী। কি বললেন তিনি?

আইএস‌এফ নিয়ে অধীর চৌধুরীর মন্তব্যের পাল্টা প্রতিক্রিয়া দিলেন ন‌ওশাদ সিদ্দিকী। কি বললেন তিনি?

নিজস্ব প্রতিবেদন: স্বাধীনতার পূর্ববর্তী সময়ে থেকে ভারতের মাটিতে দাপিয়ে রাজনীতি করে আসা কংগ্রেস খাতাই খুলতে পারেনি একুশের ভোটে। এমনকি কংগ্রেসের গড় মুর্শিদাবাদে রীতিমতো ধরাশায়ী কংগ্রেস। বামফ্রন্টের সাথে আইএস‌এফ এবং কংগ্রেসের মহাজোট বাংলায় কোনো প্রভাব বিস্তার করতে পারেনি। এর ফলে এই মহাজোটের বিরোধিতা করে সরব হয়েছে কংগ্রেস কর্মী সমর্থকরা।

‌ কেন্দ্রীয় কংগ্রেসের বেশ কয়েকজন নেতা এর দায় চাপিয়ে দিয়েছেন অধীর রঞ্জন চৌধুরীর উপরে। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির নেতৃত্বে গত শনিবার প্রদেশ কংগ্রেসের প্রথম বৈঠক আয়োজিত হয়েছে কলকাতার মৌলালির প্রদেশ কংগ্রেসের সদরদপ্তর বিধান ভবনে। এই আবহে গতকাল গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী।জোট প্রসঙ্গে গতকাল বহরমপুরের এক সাংবাদিক বৈঠকে স্পষ্ট বার্তা দিয়েছেন অধীর চৌধুরী।

আরও পড়ুন-কলকাতা হাইকোর্টে মিঠুন মামলার শুনানি হতে চলেছে আগামী শুক্রবার

তিনি বলেছেন, “মুর্শিদাবাদ জেলায় আইএসএফ আমাদের বিরুদ্ধে ভোটে প্রার্থী দাঁড় করিয়েছিল। তাই আইএসএফের সঙ্গে আমাদের কোনো রকম জোট আর আগামীদিনে থাকছে না। আমরা আগামী পুরভোটে সিপিএম কে সাথে নিয়ে জোট করে বিজেপি আর তৃণমূলের বিরুদ্ধে লড়াই চালাবো।”অধীর রঞ্জন চৌধুরীর এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে ভাঙড়ের আইএস‌এফ বিধায়ক ন‌ওশাদ সিদ্দীকী বলেছেন, “বৈদ্যবাটি অফিসে এবং আলিমুদ্দিনের অফিসে সিপিএম এর সঙ্গে জোট নিয়ে সমস্ত আলোচনা পর্ব সম্পন্ন হয়েছিল।

আরও পড়ুন-“প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বিজেপি সরকার কতটা নিষ্ঠুর এবং অমানবিক তার পরিচয় পাওয়া যাচ্ছে।”- আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় কে কর্মীবর্গ দপ্তরের চিঠি প্রসঙ্গে বললেন সৌগত রায়

আর এখন প্রদীপ, মান্নান এরা জানেন না যে জোট গঠন হয়েছে? যদি জোট গঠন করার অভিপ্রায় নাই ছিলো তাহলে একের পর এক বৈঠক কেন করেছিলেন আমাদের সাথে?”এর আগেও আব্বাস সিদ্দীকীর সাথেও ভোটের আগে অধীর রঞ্জন চৌধুরীর ঠান্ডা লড়াই সর্বসমক্ষে প্রকাশিত হয়েছিলো। ব্রিগেড সমাবেশে মঞ্চে আব্বাস আসতেই নিজের ভাষণ অসমাপ্ত রেখে পোডিয়াম চেয়েছিলেন অধীর বাবু, কিন্তু সিপিএম নেতারা তাঁকে বুঝিয়ে নিরস্ত করেছিলেন।