নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“দুয়ারে সরকারে সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার নামে তোলাবাজি বরদাস্ত করা হবে না”- জেলা শাসকদের সতর্ক করে দিল নবান্ন

নিজস্ব প্রতিবেদন: আগামী ১৬ ই আগস্ট থেকে ১৫ ই নভেম্বর পর্যন্ত দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প বসতে চলেছে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায়। এর আগে এক গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশিকা জারি করলো নবান্ন।জানা গিয়েছে বেশ কয়েকটি জেলায় অন্য জায়গা থেকে বিভিন্ন প্রকল্পের আবেদনপত্র বিলি করা হচ্ছে বলে জানতে পেরেছেন প্রশাসনিক শীর্ষ আধিকারিকরা। এর ফলে মুখ্য সচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী স্পষ্ট বলে দিয়েছেন যে এই ফর্ম বিলি করার পরিপ্রেক্ষিতে যদি কোনো রাজনৈতিক প্রভাব থেকে থাকে তাহলে অবিলম্বে সেই বিষয়টি সমাপ্ত করতে হবে।

দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে গিয়ে উপভোক্তারা তাদের চাহিদা মতো বিভিন্ন প্রকল্পের ফর্ম সংগ্রহ করতে পারবেন। প্রকল্প গুলির জন্য কি কি নথি দরকার অথবা কিভাবে সেই ফর্ম পূরণ করতে হবে সমস্ত কিছু ক্যাম্পে থাকা আধিকারিকদের তত্ত্বাবধানে করতে হবে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গত মঙ্গলবার মুখ্যসচিবকে ফোন করে এই মর্মে প্রয়োজনীয় নির্দেশাবলী দিয়েছেন। এরপরই গত মঙ্গলবার নবান্নে উক্ত বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন-ধর্না দেওয়া চাকরিপ্রার্থীদের জন্য বড় ঘোষণা করল পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার

এছাড়াও একজন প্রার্থী একসাথে যাতে বেশকিছু প্রকল্পের আবেদন পত্র জমা দিতে না পারেন সেই দিকটিও খতিয়ে দেখা হবে বলে জানা গিয়েছে। পঞ্চায়েত পুরসভার মত জায়গাগুলিতে এই ক্যাম্প করতে নিষেধ করা হয়েছিল , জানা গিয়েছে এবারেও এই একই নির্দেশ বহাল রাখা হয়েছে। নবান্নে বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে রাজ্যে যে সমস্ত জায়গা বন্যা কবলিত হয়েছে সেই সমস্ত দুর্দশাগ্রস্ত অঞ্চলগুলিতে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প বসানো হবে।এছাড়াও মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী কড়া নির্দেশ দিয়ে জানিয়েছেন,”দুয়ারে সরকার কেন চালু হলেই বেশ কিছু মানুষ ব্যক্তিগত স্বার্থে যেন সরকারের বদনাম না রটায়।

আরও পড়ুন-বিশ্ব শান্তি বৈঠকে আমন্ত্রণ পেয়ে যথেষ্ট আপ্লুত হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

‌ কোনরকম অসাধু কাজকর্মকে বরদাস্ত করা হবে না। রাজনৈতিক দাদাগিরি, তোলাবাজি কখনোই সহ্য করা হবে না। এই প্রকল্পের সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার নামে কেউ যেন বাসিন্দাদের কাছ থেকে টাকা না দাবি করে। এই প্রশাসনিক কর্মকাণ্ড সরকারি অফিসে সরকারি আধিকারিকদের তত্ত্বাবধানে সম্পন্ন হবে।

কোনো রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব এই ক্যাম্পগুলির সাথে যুক্ত থাকতে পারবেন না। সেই সাথে এই ক্যাম্প গুলিতে যাতে এই করোনা পরিস্থিতিতে ভীড় না হয় সেই দিকটাও প্রশাসনিক কর্তাদের নজর রাখতে হবে।”

Related Articles

Back to top button