নিউজকলকাতাপলিটিক্সরাজ্য

প্রধানমন্ত্রীর ফোনকে গুরুত্ব না দিয়ে অভিষেক এবং মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসা মুকুল পুত্রের।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিজেপির পরাজয়ের পরেই বাংলার রাজনীতিতে আবার বিজেপির ঘরে ভাঙনের সূক্ষ্ম সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ দাবী করেছেন যে, তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া বহু নেতা নেত্রীরা আবার তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে তাঁর সাথে যোগাযোগ করছেন। এদিকে মুকুল রায়ের বিজেপিতে অবস্থান নিয়েও যথেষ্ট অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। সেই বিষয়টি আর‌ও উসকে দিয়েছে একটি ঘটনা।

গত বুধবার মুকুল রায়ের স্ত্রীকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সময়ে হাসপাতালে উপস্থিত ছিলেন না মুকুল রায়। শুভ্রাংশু রায়ের সাথে তখন কথা বলেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। গত বুধবার সন্ধ্যা ৬:২০ নাগাদ বাইপাসের ধারে ওই হাসপাতালে উপস্থিত হয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আইসিইউ তে গিয়ে মুকুল রায়ের স্ত্রী কে দেখেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন-“নদীবাঁধের টাকা নয়ছয় করা হয়েছে। দূর্নীতিবাজদের রেহাই নয়।”- রামনগর থেকে বললেন অভিষেক।

চিকিৎসকদের কাছ থেকেই তার চিকিৎসা এবং স্বাস্থ্য সংক্রান্ত যাবতীয় বিষয় সম্পর্কে খোঁজ নেন অভিষেক। মুকুল রায়ের পুত্র শুভ্রাংশু রায়ের সাথেও কথা বলেন তিনি। তারপর কিছুক্ষণের মধ্যেই হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে যান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। মুকুল রায়ের স্ত্রী কৃষ্ণা রায়কে গতকাল হাসপাতালে দেখতে গিয়েছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এছাড়াও গতকাল সকাল দশটা নাগাদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ফোন করেছিলেন মুকুল রায়কে।

আরও পড়ুন-করোনা আক্রান্ত মুকুল রায়ের স্ত্রী। মুকুলকে ফোন প্রধানমন্ত্রীর।

কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর ফোন এবং দিলীপ ঘোষের সাক্ষাৎকে যেন গুরুত্ব‌ই দিলেন না মুকুলপুত্র শুভ্রাংশু রায়। এবারে বীজপুর থেকে বিজেপির প্রার্থী হয়ে দাঁড়িয়ে হেরে গিয়েছেন , তার পরেই কয়েকদিন আগে দলীয় নেতৃত্বকে আত্মসমালোচনার পাঠ দিয়েছেন মুকুল পুত্র। তিনি গত বুধবার অভিষেকের সাক্ষাৎ প্রসঙ্গে বলেছেন, “অভিশেক এবং তার বাড়ীর সাথে আমাদের অনেকদিনের সম্পর্ক। আমার সাথে দেখা হলেই অভিষেক আমার মায়ের খোঁজ নেয়।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই সৌজন্য ভারতের রাজনীতিকে অন্য মাত্রায় চালিত করবে।”তবে প্রধানমন্ত্রীর ফোন প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রী হলেন বিজেপির শীর্ষ নেতা। আমার বাবা বিজেপির কর্মী। প্রধানমন্ত্রী তার দায়িত্ব পালন করেছেন, কিন্তু অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যেটা করেছেন তা আমি দৃষ্টান্ত বলে দেখছি।”মুকুল পুত্রের এই মন্তব্যকে ঘিরে যথেষ্ট গাঢ় হয়েছে জল্পনা ।

Related Articles

Back to top button