মা আনন্দময়ী ভবতারিণী সর্বদা তার সন্তানদের কল্যাণ করেন, মায়ের আশীর্বাদেই রক্ষা পায় জীবকুল!

ভারতের অন্যতম এক বিখ্যাত মন্দির হল দক্ষিণেশ্বরের ভবতারিণী মায়ের মন্দির। এই জাগ্রত মন্দিরের প্রতিষ্ঠা করেছিলেন রাণী রাসমনি। এই মন্দিরের‌ই পুরোহিত ছিলেন শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব। এই মন্দিরের ইতিহাস সকলের‌ই জানা। এই মন্দিরে পূণ্যলাভের আশায় দলে দলে যান ভক্তগন। মা ভবতারিণীর আশীর্বাদ মাথায় থাকলে তার জীবনে উন্নতির পথ হয় আরো প্রশস্ত। মন থেকে মায়ের আরাধনা করলে মা অবশ্য‌ই তাঁর সন্তানদের ডাকে সাড়া দেন।

আরও পড়ুন –বড় ঘোষণা- কেবল পাঁচটি ব্যাঙ্ক সরকারি থাকবে, বাকি ব্যাঙ্ক হচ্ছে বেসরকারিকরণ

মা কখনো তাঁর সন্তানদের দূরে সরিয়ে দেননা। তাই মায়ের শরনাপন্ন হয় যারা তাঁরা কখনোই খালি হাতে ফিরে আসেন না। মা তাঁর ভক্তদের সমস্ত মনোষ্কামনা পূরণ করেন। দক্ষিণেশ্বরে পূজো দিতে কাতারে কাতারে ভীড় জমান অসংখ্য মানুষ। এই মন্দিরের ভবতারিণী মায়ের মহিমা সারা বাংলাতেই তথা ভারতে বিখ্যাত। একনিষ্ঠ ভাবে মা ভবতারিণী কে ডাকলে তিনি তাঁর সন্তানদের স্নেহভরে আশীর্বাদ করেন।

আরও পড়ুন – বড় খবর- রাজ্যে সপ্তাহে দুদিন বন্ধ থাকবে হাট-বাজার থেকে অফিস-আদালত, বড় ঘোষণা রাজ্যের

মায়ের আশীর্বাদে জীবন হয়ে ওঠে সাফল্যে ভরপুর। যেকোনো সমস্যা থেকে মায়ের আশীর্বাদে সহজেই মুক্তি পাওয়া যায়।
বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার দক্ষিণেশ্বর ভবতারিণী মায়ের মন্দির এবং সংলগ্ন চত্বরকে ঢেলে সাজিয়েছে, পাশাপাশি দক্ষিণেশ্বর স্টেশন থেকে একটি স্কাইওয়াক‌ও তৈরি করা হয়েছে মন্দির পর্যন্ত।

এখানে আপনার মতামত জানান