মেহুল চোকসিকে বিচারবিভাগীয় হেফাজতে পাঠালো ডোমিনিকার আদালত।

মেহুল চোকসিকে বিচারবিভাগীয় হেফাজতে পাঠালো ডোমিনিকার আদালত।

নিজস্ব প্রতিবেদন: গত ২৩ শে মে অ্যান্টিগা থেকে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কের কোটি কোটি টাকার জালিয়াতি মামলার অন্যতম অভিযুক্ত মেহুল চোকসি। তারপরেই তিনি ধরা পড়েছিলেন ডোমিনিকা পুলিশের হাতে। ভারত থেকে সিবিআইয়ের একটি স্পেশাল টিম চার্টার্ড বিমানে করে মেহুলকে ভারতে প্রত্যর্পণের জন্য ডোমিনিকা র‌ওনা হয়েছিলো।

কিন্তু ডোমিনিকার আদালতে মেহুল দাবি করেছিলেন যে তিনি ভারতীয় নাগরিক নন এবং তাকে নাকি তার বান্ধবী অপহরণ করে ডোমিনিকায় নিয়ে গিয়েছিল।এর ফলে মেহুল কে ভারতে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে যথেষ্ট বাধা বিপত্তির সৃষ্টি হয়েছে ডোমিনিকার আদালতে। মেহুল যে একজন ভারতীয় নাগরিক তা প্রবলভাবে প্রমাণ করতে সচেষ্ট হয়েছে ভারত সরকার।

আরও পড়ুন-জামাইষষ্ঠী সেরে বাড়ি ফেরার পথে স্ত্রী ছেলেমেয়েদের সামনেই ছিনতাইবাজদের গুলিতে মৃত ব্যক্তি। চাঞ্চল্যকর ঘটনা হুগলির সিঙ্গুরে।

গত বুধবার সিবিআই একটি অতিরিক্ত চার্জশিট বেশ করেছে যাতে তারা জানিয়েছে যে ইডি যে মেহুলকে আর্থিক তছরূপ মামলায় গ্রেফতার করতে চলেছে, এই বিষয়টি জানার পরেই ২০১৭ সালে তিনি ভালত ছেড়ে পালিয়ে যান।এদিকে জানা গিয়েছে যে ডোমিনিকান আদালত মেহুল‌ চোকসিকে পুলিশী হেফাজত থেকে স্থানান্তর করে বিচারবিভাগীয় হেফাজতে পাঠিয়েছে। মেহুল এর আইনজীবী দাবি করেছেন যে তার নাকি স্বাস্থ্যের যথেষ্ট অবনতি হচ্ছে।

আরও পড়ুন-বাবা মা সহ পরিবারের চারজনকে খুন করে বাড়িতেই চার মাস ধরে পুঁতে রাখলো বাড়ির ছোট ছেলে। চাঞ্চল্যকর কান্ড মালদার কালিয়াচকে।

তারা বলেছেন যে মেহুলের উপর যথেষ্ট মানসিক চাপ রয়েছে তাই তাঁর রক্তচাপ অনেকটাই বেশী হয়ে গিয়েছে। এই মর্মে মেহুলের সমস্ত ডাক্তারি পরীক্ষার রিপোর্ট আদালতে জমা দিয়েছে তার আইনজীবীরা। ডোমিনিকান আদালতের এই সিদ্ধান্তের ফলে ভারতের যথেষ্ট সুবিধা হবে বলে মনে করছেন তদন্তকারী অফিসাররা।