নিউজপলিটিক্সরাজ্য

আমবাসায় তৃণমূল কর্মীদের ব্যাপক ধরপাকড়। উঠলো পুলিশী সন্ত্রাসের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদন: ত্রিপুরার ধলাই জেলার আমবাসায় তৃণমূল কর্মীদের উপর হামলার ঘটনায় পাল্টা তৃণমূল কর্মীদের ই গ্রেফতার করেছে ত্রিপুরা পুলিশ। এমনটাই অভিযোগ করেছে আমবাসার স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব।ত্রিপুরার মাটিতে বাম ছাত্রনেতা সম্রাট মোদক সহ বেশ কয়েকজন সিপিএম কর্মী সমর্থকরা তৃণমূলে যোগদান করার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছিলেন। এবার সেই ছাত্রনেতা সহ অন্যান্য বামকর্মীদের মারধর করার অভিযোগ উঠেছে বিজেপি কর্মী সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

এই বিষয়ে তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষ টুইট করে লিখেছেন,”আবার খোয়াইতে হামলা হল। তৃণমূলে যোগদান করতে চেয়ে গতকাল রবিবার দেখা করেছিলেন বাম ছাত্রসংগঠন সম্রাট মোদক। মোট ৩০ জন বাম নেতাকর্মীর যোগদান করার কথা ছিল তৃণমূলে। কিন্তু আজ সকালে ছাত্র নেতা সম্রাট মোদক সহ সিপিএম কর্মীদের ঘিরে ধরে ব্যাপক মারধর করেছে বিজেপি।

আরও পড়ুন-অধিবেশনের সূত্রপাতের আগে দলীয় সাংসদদের নিয়ে রণকৌশল নির্দিষ্ট করতে বৈঠক করলেন অভিষেক

ত্রিপুরার মাটিতে রীতিমত গুন্ডারাজ চালাচ্ছে তারা। ‌ ভয় পেয়ে নিজেদের অস্তিত্ব বাঁচাতে লাগাতার আক্রমণ করে চলেছে বিজেপি। কিন্তু এইভাবে তৃণমূলকে কখনোই আটকানো যাবেনা।”কিন্তু এই ঘটনায় উল্টে আসল দোষীদের গ্রেফতার না করে তৃণমূল কর্মীদের গ্রেফতার করার অভিযোগ উঠেছে ত্রিপুরা পুলিশের বিরুদ্ধে।

আরও পড়ুন-“প্লেনে গেলে পাশের সিটে পাঁচজন গুন্ডা তুলে দেওয়া হবে, অভিষেকের জীবন বিপন্ন”- বললেন মুখ্যমন্ত্রী

‌ আজ ভোর রাতে ৫ জন তৃণমূল কর্মীকে গ্রেফতার করেছে ত্রিপুরা পুলিশ। ওই পাঁচজন তৃণমূল কর্মী হলেন মিলটন বিশ্বাস, তমাল বসু, নীতু মালাকার, পঙ্কজ দেবনাথ, উত্তম কলুই। এখনো পর্যন্ত তাদের কোন থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে সেই বিষয়ে কিছু জানা যায়নি। জানা গিয়েছে ধৃত তৃণমূল কর্মীদের ধলাই আদালতে হাজির করানো হবে।

এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ত্রিপুরা জুড়ে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার ত্রিপুরা প্রশাসনের বিরুদ্ধে বিস্তর অসন্তোষ জাহির করেছে।

Related Articles

Back to top button