নিউজটেক নিউজরাজ্য

“ম্যান মেড বন্যা।”- জলে নেমে দূর্গতদের পাশে গিয়ে বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

নিজস্ব প্রতিবেদন: টানা বৃষ্টিতে জলমগ্ন হয়েছিলো কলকাতার বহু এলাকা। বৃষ্টি কমতেই জল নেমেও গিয়েছিলো। কিন্তু বেহাল‌ পরিস্থিতিতে পড়েছে হাওড়ার আমতা, উদয়নারায়ণপুর, হুগলির গোঘাট, খানাকুল প্রভৃতি এলাকা। আজ হেলিকপ্টারে বন্যা বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শন করার কর্মসূচি নিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ‌

কিন্তু খারাপ আবহাওয়ার কারণে আজকে হেলিকপ্টারে তার এই কর্মসূচি বাতিল করতে হয়। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী বন্যা দুর্গত মানুষের কাছে পৌঁছানোর জন্য সড়ক পথেই চলে গিয়েছেন বন্যা দুর্গত এলাকা গুলিতে। প্রথমে সড়কপথে গিয়েছিলেন তিনি হাওড়ার আমতায়।আমতায় পৌঁছে তিনি বন্যা দুর্গত মানুষের সাথে কথা বলেছেন।

আরও পড়ুন-ব্যবসার জন্য আদর্শ পরিবেশ রয়েছে বাংলার মাটিতে। চারটি স্কচ অ্যাওয়ার্ড পেলো পশ্চিমবঙ্গ।

মানবিক মুখ্যমন্ত্রীকে দেখা গিয়েছে তিনি নিজে জলে নেমে বন্যা দুর্গত মানুষদের সাথে তাদের সুবিধা ও অসুবিধার কথা বলেছেন। ‌ এই পুরোটা সময়ে তিনি নিজের ছাতা নিজেই ধরেছিলেন।এছাড়াও আজ হুগলির খানাকুলে এবং গোঘাটে যাওয়ার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রীর।‌সেইমতো হুগলির খানাকুলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আগমন উপলক্ষ্যে হেলিপ্যাড বানানো হয়েছিলো।

কিন্তু অত্যন্ত খারাপ আবহাওয়ার দরুণ তিনি খানাকুলে যেতে পারেননি আজ। তিনি উদয়নারায়নপুরেও আজ বন্যা দুর্গত মানুষদের সাথে দেখা করতে গিয়েছেন।মুখ্যমন্ত্রী উদয়নারায়নপুর এর মাটি থেকে অভিযোগ করেছেন যে, “এই বন্যা সম্পূর্ণ ম্যান মেড বন্যা । আমি বারবার ডিভিসিকে অনুরোধ করেছিলাম যে রাজ্যকে না জানিয়ে যেন জল না ছাড়া হয়।

আরও পড়ুন-আবর্জনার স্তূপে পড়ে রয়েছে রাশি রাশি আধার কার্ড। চাঞ্চল্যকর ঘটনা পশ্চিমবঙ্গের একটি জেলায়।

কিন্তু ডিভিসি আমার কথা শোনেনি। আমাদের না জানিয়ে জল ছাড়ার ফলেই এই বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।”প্রবল বৃষ্টিতে দক্ষিণবঙ্গের হুগলির অন্তর্গত ঘাটাল, খানাকুল , আরামবাগে নদীবাঁধ ভেঙে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। ঘাটালের বিস্তীর্ণ অঞ্চল টানা চারদিন ধরে জলমগ্ন হয়ে রয়েছে।

ইতিমধ্যেই ঘাটালে মোতায়েন রয়েছে বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের কর্মীরা। ঘাটালের বিভিন্ন জায়গা থেকে হাজার হাজার মানুষকে উদ্ধার করে ত্রাণশিবিরে পাঠানো হয়েছে। একতলা বাড়ি গুলির প্রায় বেশীরভাগ অংশটাই জলের তলায় ডুবে গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে।বেশ কিছু জায়গায় দেখা গিয়েছে, গবাদী পশুদের নিয়ে ছাদে উঠে ত্রিপল খাটিয়ে রয়েছেন মানুষজন।

আরও পড়ুন-রাজ্যে সূত্রপাত হল উপনির্বাচনের প্রস্তুতির।

অনেকেই বন্যা পরিস্থিতি সত্ত্বেও বাড়ি ছেড়ে যেতে রাজি হচ্ছেন না। ঘাটালের বিস্তীর্ণ জায়গায় পানীয় জলের পাউচ পৌঁছে দিচ্ছে বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের কর্মীরা। এছাড়াও ত্রাণ পাঠানো হয়েছে ওই সমস্ত এলাকায়।

Related Articles

Back to top button