তৃণমূলের তৈরি মূর্তি, দেবী দুর্গারূপী মমতা বধ‌ করছেন মহিষাসুর রূপী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। উঠলো বিতর্কের ঢেউ

তৃণমূলের তৈরি মূর্তি, দেবী দুর্গারূপী মমতা বধ‌ করছেন মহিষাসুর রূপী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। উঠলো বিতর্কের ঢেউ

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাংলা দখলের মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে বিজেপি। বাংলার কর্তৃত্ব নিজেদের হাতে রাখতে মরিয়া হয়ে রয়েছে তৃণমূল‌ও। কার হাতে থাকবে বাংলার কর্তৃত্ব, তা জানা যাবে ২ রা মে’র ফলাফলের পরেই। বিজেপি এবং তৃণমূল এই দুই হেভিওয়েট রাজনৈতিক দলের রেষারেষিতে রীতিমতো সরগরম পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে সারা রাজ্য জুড়ে। তবে শক্তিশালী দল হিসেবে মাথা তুলে দাঁড়াতে সিপিএমের সংযুক্ত মোর্চা ।

এবারের ভোটে তৃণমূল এবং বিজেপিকে হারিয়ে জয় ছিনিয়ে আনতে যথেষ্ট আশাবাদী বামফ্রন্ট । এদিকে যথেষ্ট রাজনৈতিক তরজার সৃষ্টি হচ্ছে বিভিন্ন ইস্যুকে কেন্দ্র করে। ভোটের এই আবহে নিরন্তর চলছে বাকযুদ্ধ এবং দেওয়াল লিখন যুদ্ধ । বিধানসভা নির্বাচনের অন্যতম জনসংযোগের মাধ্যম জনসভা গুলি থেকে একে অপরের প্রতি তীব্র বিষোদগার করে চলেছে রাজনৈতিক সংগঠনের শীর্ষ নেতারা।

আরও পড়ুন-“উনি কথায় কথায় ধর্ণায় বসে পড়ছেন।”- মুখ্যমন্ত্রী কে কটাক্ষ করলেন দিলীপ ঘোষ।

এদিকে তৃণমূলের তৈরি একটি মূর্তি কে ঘিরে অত্যন্ত বিতর্কের ঝড় উঠেছে বাংলা জুড়ে। একটি মূর্তি রাখা হয়েছে হিলির জামালপুর এলাকার তৃণমূলের পার্টি অফিসে, ওই মূর্তি টি তে দেখানো হয়েছে ত্রিশূল দিয়ে মহিষাসুর রূপী প্রধানমন্ত্রীকে বধ করছেন দেবী দুর্গা রূপী মমতা। ওই মূর্তির দশ হাতে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প গুলি কে অস্ত্র রূপে দেখানো হয়েছে। এবং ত্রিশূল টিকে উন্নয়নের প্রতীক হিসেবে দেখানো হয়েছে। ‌

এই মুহুর্তের বিষয়টি জানাজানি হতেই প্রবল বিক্ষোভে ফেটে পড়েছেন স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। ‌ বিক্ষোভ বৃদ্ধি পেতেই হিলির জামালপুরের তৃণমূল পার্টি অফিসের সামনে থেকে এই মূর্তিটি সরিয়ে নেওয়া হয়।এই প্রসঙ্গে স্থানীয় তৃণমূল নেতা বলেছেন, “আমরা আমাদের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে দেবী দূর্গা হিসাবেই দেখি। প্রধানমন্ত্রী প্রকাশ্য জনসভায় যখন মুখ্যমন্ত্রী কে ব্যঙ্গ করে দিদি ও দিদি বলে ডাকেন সেটা যদি বিজেপি কর্মী সমর্থক রা পছন্দ করে, তাহলে এই মূর্তিটিকেও অবশ্যই তাদের পছন্দ করা উচিৎ।”