“নরেন্দ্র মোদীর সাথে জনপ্রিয়তায় ধারেকাছে আসতে পারবেন না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়”- বললেন বাবুল সুপ্রিয়

“নরেন্দ্র মোদীর সাথে জনপ্রিয়তায় ধারেকাছে আসতে পারবেন না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়”- বললেন বাবুল সুপ্রিয়

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটে অনেকটাই অন্যরকম আবহাওয়া পশ্চিমবঙ্গের বুকে। ‌ কারণ অন্যান্যবারের কোন ভোটে এতটা টানটান উত্তেজনা অনুভূত হয়নি পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক স্তরে। বিজেপি আত্মবিশ্বাসের সুরে জানিয়েছে তারাই বাংলার মাটিতে তাদের একচ্ছত্র আধিপত্য স্থাপন করতে চলেছে। এদিকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দৃপ্ত কণ্ঠে ঘোষণা করেছেন যে তিনি ১০-০ বলে বিজেপিকে মাঠের বাইরে বের করে দেবেন।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই প্রথম বাংলার মাটিতে এতবার জনসভা করতে আসছেন। বিজেপির একটাই লক্ষ্য যে করেই হোক নবান্নের সিংহাসন দখল করা। এদিকে বিজেপির চোখে চোখ রেখে মাটি কামড়ে দৃঢ়তার সঙ্গে লড়াই করে যাচ্ছে তৃণমূল। আবার বাম সংযুক্ত মোর্চা তাদের তরুণ ব্রিগেডের বলে বলীয়ান হয়ে যথেষ্ট আশাবাদী যে এবারে তারাও তাদের লাল ঝান্ডা সগৌরবে উড়িয়ে দেবে রাজ্যের অলিতে গলিতে।বিজেপির অন্যতম প্রার্থী কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। ‌

বাবুল সুপ্রিয়কে এবারে টালিগঞ্জের প্রার্থী হিসেবে দাঁড় করিয়েছে বিজেপি। মিঠুন চক্রবর্তীর সঙ্গে রোড শো করেছেন বাবুল সুপ্রিয়। সংবাদমাধ্যমের কাছে তিনি প্রায় ছয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর স্তুতি করে থাকেন।বাবুল সুপ্রিয় বলেছেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মত জনপ্রিয় মোদী নন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কয়েক গুণ মাল্টিপ্লাই করলে তবে মোদীর ধারেকাছে হয়তো বসতে পারেন।

মানুষ বলে দিচ্ছে তারা কাকে কতটা বিশ্বাস করে। প্রধান বিষয়টি হলো ক্রেডিবলিটি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্রেডিবলিটি হারিয়েছেন। উনি পলিটিক্সের উপরে উঠতে পারেননি। এদিকে প্রশান্ত কিশোর কি বলছেন, তাতে আমাদের কিছু যায় আসে না, কারণ আমরা আগেও উনাকে গুরুত্ব দিইনি, আর এখনো দিই না। মানুষ ভোট দিচ্ছে , ২ তারিখেই সব পরিষ্কার হয়ে যাবে।”