দলীয় কর্মীদের‌ই অসভ্য, মাতাল, ইডিয়ট বলে প্রকাশ্যে ভর্ৎসনা মহুয়া মৈত্রের

দলীয় কর্মীদের‌ই অসভ্য, মাতাল, ইডিয়ট বলে প্রকাশ্যে ভর্ৎসনা মহুয়া মৈত্রের

নিজস্ব প্রতিবেদন: কৃষ্ণনগরের তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। প্রথম থেকেই তিনি বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে। একজন জননেত্রীর হওয়া উচিত শান্ত, সংযত ।‌ একজন জননেতা বা জননেত্রী যেই হোক না কেন তাঁদের সর্বাগ্রে মনে রাখা দরকার যে জনগণের সাথে তাঁরা ভালো‌ ব্যবহার করবেন। কিন্তু এই বিষয়ে অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। গত ১৭ ই ডিসেম্বর একটি জনসভায় তিনি সংবাদমাধ্যমকে ‘২ পয়সার প্রেস বলে অপমান করেছিলেন।

‘ তার এই মন্তব্যে যথেষ্ট শোরগোল পড়ে গিয়েছিল রাজ্য রাজনীতিতে। প্রায়শই নিজস্ব মেজাজে থেকে বিরোধীদের উপর আক্রমণ শানাতে দেখা যায় মহুয়া মৈত্র কে। কিন্তু এবারে দলীয় কর্মীদের কেই ভর্ৎসনা করলেন মহুয়া মৈত্র।নদীয়ার করিমপুরে তৃণমূল প্রার্থীর হয়ে একটি রোড শোতে অংশ নিয়েছিলেন মহুয়া মৈত্র। ওই রোড শোতে তার সাথে ছিলেন তৃণমূল প্রার্থী সায়ন্তিকা এবং অভিনেতা তথা সাংসদ দেব ।

আরও পড়ুন-‘আমাকে মমতা ব্যানার্জি একটা টাকাও দেয়নি’, প্রচারে গিয়ে রেগে আগুন নুসরত জাহান, ভাইরাল ভিডিও!

প্রিয় তারকাদের দেখতে রাস্তায় জনমানুষের ঢল নেমেছিলো। আর তখনই ভিড়ের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়ে যায়। মহিলাদের কেও ধাক্কা দেওয়া হয়। পুলিশ রীতিমতো হিমশিম খেয়ে যায় এই ভিড় সামলাতে। আর তখনই মেজাজ হারিয়ে ফেলেন কৃষ্ণনগরের সাংসদ। তিনি মাইকে চেঁচিয়ে দলীয় কর্মী সমর্থকদের বলেন, “এখান থেকে সরে যাও, মেয়েদের ধাক্কা দিচ্ছো কেন, অসভ্য , মাতাল কোথাকার। ইডিয়ট।”

এরপরই তার এই বেফাঁস মন্তব্যের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রবল বেগে ছড়িয়ে পড়তে থাকে। নিজের দলীয় কর্মীদের এইভাবে ভর্ৎসনা করায় অনেকেই মহুয়া মৈত্র সমালোচনা করেছেন।বিজেপি নেতা তরুণ জ্যোতি তিওয়ারি কটাক্ষ করে বলেছেন, “মহুয়া মৈত্র কুড়ি টাকার পাউচ খাইয়ে দলে কর্মী নিয়োগ করেছেন আর তারা মাতলামি করবে না, এটা কিভাবে সম্ভব ?”