নিউজঅফবিটরাজ্য

তৃণমূল ভবনে চিলেকোঠায় উদ্ধার লক্ষ্মী পেঁচা। তুলে দেওয়া হল বনদপ্তরের হাতে।

নিজস্ব প্রতিবেদন: গ্রাম বাংলার বুকে লক্ষ্মীপেঁচা অত্যন্ত শুভ বলে বিবেচিত হয়। বেশিরভাগ গ্রামবাংলার বাড়ি গুলির ছাদের চিলেকোঠায় এই পেঁচার বাসা দেখা যায়। ঠিক এরকমই একটি ঘটনা ঘটেছে খোদ কলকাতা শহরে।

এমনিতেই কলকাতার বুকে পেঁচা অত্যন্ত দূর্লভ হয়ে গিয়েছে। গুটিকয়েক পেঁচার অস্তিত্ব যেভাবে হোক কলকাতার বুকে টিকে রয়েছে। গতকাল কলকাতার তৃণমূল ভবনে উদ্ধার হয়েছে একটি লক্ষ্মী পেঁচা।

আরও পড়ুন-হু হু করে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। আগামী সোমবার থেকে সম্পূর্ণ লকডাউন বাংলাদেশে।

জানা গিয়েছে বাইপাসের ধারে তৃণমূল ভবন সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে। এই উদ্দেশ্যে বিভিন্ন জরুরী নথিপত্র এবং আসবাব সরানোর কাজ চলছিল। এই পরিস্থিতিতে তৃণমূল ভবন এর চিলেকোঠা থেকে উদ্ধার হয়েছে একটি লক্ষ্মী পেঁচা।

ভবনের কর্মীরা জানিয়েছেন অনেকদিন ধরেই চিলেকোঠায় ওই পেঁচাটি বাসা তৈরি করে বাস করছিলো। আসবাবপত্র সরাতে গিয়ে চিলেকোঠায় ওই পেঁচার বাসা দেখতে পান কর্মীরা। তারা দেখেন যে পেঁচা টি উড়তে পারছেনা।

আরও পড়ুন-দুই বঙ্গেই চলবে বৃষ্টি। সেই সাথে বজ্রপাত। জানালো আবহাওয়া দপ্তর।

খবর দেওয়া হয় বনদপ্তরে। বনদপ্তর এর কর্মীরা এসে দেখেন পেঁচা টির একটি ডানা যথেষ্ট আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে। তারা অনুমান করেছেন যে সম্ভবত চিনা মাঞ্জায় এই পেঁচা টির ডানা আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে।

এই লক্ষ্মীপেঁচাটি এর বিজ্ঞানসম্মত নাম হল কমন বার্ন আউল। একে ব্রাউন আউল‌ও বলা হয়। বনদপ্তর এর কর্মীরা এই পেঁচা টিকে সল্টলেকের বনদপ্তরে নিয়ে গিয়েছেন।

সেখানেই এর ডানার পরিচর্যা চলছে। সুস্থ হলে একে স্বাভাবিক পরিবেশে ফিরিয়ে দেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button