নিউজপলিটিক্সরাজ্য

শোভন-বৈশাখীকে আক্রমণ করলেন কুণাল ঘোষ। কি বললেন তিনি?

নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রতিটি মানুষের জীবনে কখনো না কখনো সময় প্রেম আসে। প্রেমে মগ্ন হ‌ওয়ার পাশাপাশি প্রতিটি মানুষের কিছু স্বাভাবিক দায়িত্ববোধ রয়েছে কর্তব্য রয়েছে যেগুলো তাকে পালন করতে হয়। অনেক সময় গভীর প্রেমে আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে গিয়ে মানুষ ঠিক বেঠিক বিবেচনা করতে অসমর্থ হয়। ঠিক এমনই ঘটনা ঘটেছে প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সাথে।

বর্তমানে তার দাম্পত্য জীবনে যথেষ্ট চড়াই-উৎরাই দেখা দিয়েছে। তার স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায় এবং ছেলেমেয়ের সঙ্গ ত্যাগ করে শোভন বর্তমানে গোলপার্কের এক বহুতলে থাকেন। তাঁর সাথে ছায়াসঙ্গী হয়ে থাকেন প্রাক্তন অধ্যক্ষা বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। সিবিআই গত ১৭ ই মে নারদা মামলায় গ্রেফতার করেছে ফিরহাদ হাকিম, মদন মিত্র, সুব্রত মুখোপাধ্যায় এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়কে।

আরও পড়ুন-‘গদ্দার, বেহায়া সাংসদ’- এবার সুনীল মন্ডলের বিরুদ্ধে পোস্টার জামালপুরে। পাল্টা তোপ দাগলেন সুনীল মন্ডল‌ও

গ্রেপ্তার করে তাদেরকে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল নিজাম প্যালেসে সিবিআই দপ্তরে। তখনই স্বামীর গ্রেপ্তারের খবর শুনে স্থির থাকতে পারেননি রত্না চট্টোপাধ্যায় । সাথে সাথে উকিল কে সাথে নিয়ে তিনি ছুটে গিয়েছিলেন নিজাম প্যালেসে। রত্না চট্টোপাধ্যায় দাম্পত্যে সমস্ত ওঠাপড়া কে একপাশে সরিয়ে রেখে পাশে দাঁড়িয়েছিলেন শোভনের।

কিন্তু সেই রত্না চট্টোপাধ্যায়ের উপরেই কালিমা লেপন করেছেন শোভন-বৈশাখী। এদিকে নিজের সমস্ত সম্পত্তি বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে উইল করে দিয়েছেন শোভন চট্টোপাধ্যায় এমনটাই জানা গিয়েছে। এই ঘটনার কথা জানাজানি হতেই নেটিজেনরা তীব্র নিন্দায় সরব হয়েছেন শোভনের। নিজের ছেলে মেয়ে থাকা সত্ত্বেও কিভাবে তিনি বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে উইল করে দিতে পারেন সেই প্রশ্ন সকলেই ছুঁড়ে দিয়েছেন শোভনের দিকে।

আরও পড়ুন-নিজের সমস্ত স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তি বৈশাখীর নামে উইল করে দিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়

এই আবহে শোভন চট্টোপাধ্যায় কে আক্রমণ শানিয়ে টুইট করেছেন তৃণমূল সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষ। তিনি টুইটে লিখেছেন, “গ্ল্যাক্সোবেবি কি নিজের পদবি ত্যাগ করে বন্দোপাধ্যায় পদবগ নিলো নাকি? জামাইষষ্ঠীর দিন ডামি জামাইয়ের এমন পদবিত্যাগ ও ফুলটুসিকে সম্পত্তিদান সার্কাসের এক অভূতপূর্ব ইভেন্ট।”

এছাড়াও কুনাল ঘোষ অপর একটি টুইটে লিখেছেন, “পাশে থাকার জন্য সম্পত্তিদান? বন্ধুত্বের বিনিময়মূল্য? ছি ছি! আমার জীবনের কঠিনতম দিনে যারা পাশে ছিলো, তাদের তো কিছু দিলেও নেবে না। এর নাম বন্ধুত্ব, ভালোবাসা। নিঃস্বার্থে আগলে রাখা। সমাজে আসল বন্ধুদের ছোট করার কোনো অধিকার এই দুই বিকৃতমস্তিষ্কের নেই।”

Related Articles

Back to top button