নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“মুকুল রায় কি বাচ্চা ছেলে যে ওকে বিজেপিতে ভয় দেখানো হবে?”- মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্যের জবাব দিলেন জয়প্রকাশ।

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভয়াবহ ভাঙন পদ্মফুল শিবিরে। আনুষ্ঠানিক ভাবে তৃণমূলে যোগদান করেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি মুকুল রায়। গত বছরেই তিনি তৃণমূলে ফিরে যেতে চেয়েছিলেন। গতকাল শুক্রবার পদ্মফুল শিবিরের সাথে বিগত চার বছরের সম্পর্কের ইতি টেনে তৃণমূলে ফিরেছেন মুকুল রায়।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় মুকুল রায়ের গলায় তৃণমূলের উত্তরীয় পরিয়ে দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁকে তৃণমূলে যোগদান করিয়েছেন। গতকাল তৃণমূল ভবনে ঢুকেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রণাম করেছেন মুকুল রায়। মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু রায় মুখ্যমন্ত্রীর পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করেন। গতকাল বিকেল ৪:৩০ নাগাদ সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, “মুকুল আমাদের পরিবারের ছেলে।

আরও পড়ুন-“আমি বিরোধী দলনেতা রয়েছি। তৃণমূল বিধায়ক ভাঙিয়ে দেখাক।”- শুভেন্দুর হুংকার এর পরেই দলবদল মুকুলের।

কেন্দ্রীয় সরকার ওকে ধমক দিয়ে এজেন্সির দ্বারা ভয় দেখিয়ে অত্যাচার করেছে। যার জন্য কখনোই মানসিক শান্তি পায়নি। একটা কথাই বলবো বিজেপি করা যায় না। বিজেপিতে যারা রয়েছেন তাঁরা মনুষ্যত্ব নিয়ে বাঁচতে পারেন না।”

এদিকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপির সহ-সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার বলেছেন,”মুকুলবাবু কি একটা বাচ্চা ছেলে যে তাঁকে বিজেপিতে ভয় দেখিয়ে আটকে রাখা হয়েছে? এই কথা বলে মুকুল রায় কি অসম্মান করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। বিজেপির সর্বভারতীয় নেতার পদ দেওয়া হয়েছিল মুকুল রায় কে। সেখানে যদি বলা হয় তাঁকে ভয় দেখিয়ে বিজেপিতে রাখা হয়েছে তার মানে মুকুল রায়কেই অপমান করা হলো।

আরও পড়ুন-‘গোয়ালের গরু দড়ি ছিঁড়ে পালিয়েছিল, খুঁটিতে বাঁধা হলো’ – মুকুল প্রত্যাবর্তনে অনুব্রত

সিবিআই গ্রেপ্তার করলে তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীরা অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চলে যান। সেই বিষয়টির পরিপ্রেক্ষিতেই হয়তো এই কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।”

Related Articles

Back to top button