মুখ্যমন্ত্রীর প্রচারে কমিশনের নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে কালো ব্যাজ পরে পথে নামলেন বুদ্ধিজীবীরা।

মুখ্যমন্ত্রীর প্রচারে কমিশনের নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে কালো ব্যাজ পরে পথে নামলেন বুদ্ধিজীবীরা।

নিজস্ব প্রতিবেদন: শীতলকুচির ঘটনায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মন্তব্য করেছিলেন যে, “স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের নির্দেশে কাজ করছে নির্বাচন কমিশন, সেই সাথে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর নির্দেশে এই নিরীহ মানুষের উপর গুলি চালিয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনী।”মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যকে সম্পূর্ণ নির্বাচনী বিধি ভঙ্গকারী বলে উল্লেখ করে নির্বাচন কমিশন ২৪ ঘন্টার জন্য মুখ্যমন্ত্রীর সমস্ত নির্বাচনী কার্যবিধি বাতিল করেছে।

এদিকে নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্তকে সম্পূর্ণ সংবিধানিক এবং অগণতান্ত্রিক বলে উল্লেখ করে কমিশনের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে আজ বেলা বারোটার পর ধরনায় বসেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ধরণায় বসেই ছবি এঁকেছেন তিনি।এদিকে নির্বাচন কমিশনের সমালোচনা করেছেন বেশ কয়েকজন বিদ্বজ্জনেরা। ‌ যেমন গায়ক কবীর সুমন বলেছেন, “নির্বাচন কমিশনের এই ফরমান অত্যন্ত হাস্যকর। ‌ কমিশনের স্বাতন্ত্র্য আজ বিপন্ন হয়েছে।

আরও পড়ুন-ভয়াবহ অবস্থা মহারাষ্ট্রে, কয়েক ঘন্টার মধ্যেই লকডাউন করতে চলেছে মহারাষ্ট্র সরকার

“এদিকে মুখ্যমন্ত্রীর জনসভায় নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে পথে নামলেন বুদ্ধিজীবীরা। টলিউডের পরিচালক হরনাথ চক্রবর্তী থেকে শুরু করে লাভলী মৈত্র, সৌমিত্র রায় সহ বেশ কয়েকজন বুদ্ধিজীবীরা কালো ব্যাজ পড়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। হরনাথ চক্রবর্তী বলেছেন, “আমরা কোন রাজ্যে বসবাস করছি? বিজেপির নাম নিতেই আর ইচ্ছে করছে না , গণতন্ত্রকে হত্যা করছে বিজেপি।

“এদিকে সোনারপুর দক্ষিণ তৃণমূল প্রার্থী লাভলী মৈত্র বলেছেন, “বিজেপি নেতারা অনেক প্ররোচনামূলক মন্তব্য ছুঁড়ে দিচ্ছেন, কিন্তু কমিশন শুধুমাত্র মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্যের বিষয়টি মনোযোগ সহকারে দেখছে। এবারের ভোটে মুখ্যমন্ত্রীর এই অপমানের জবাব দেবেন পশ্চিমবঙ্গের মানুষজন।”কাল পোস্টার হাতে গতকাল পথে নেমে ছিলেন এই শিল্পীরা। ‌ অনেকের হাতেই দেখা গিয়েছে BLACK DAY OF DEMOCRACY লেখা প্ল্যাকার্ড। সকলেই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের জনসভায় উপর নির্বাচন কমিশনের নিষেধাজ্ঞার সম্মিলিত প্রতিবাদ জানিয়েছেন ।