নিউজবিনোদন

দেশে লাগামছাড়া করোনা সংক্রমণ; বন্ধ হলো শাহরুখের পরবর্তী ছবি পাঠানের শ্যুটিং!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-দেশে ক্রমাগত লাগামছাড়া ভাবে বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে করোনার সংক্রমণ। ইতিমধ্যেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য বেশ কয়েকটি রাজ্য লকডাউন এর পথে হাঁটতে বাধ্য হয়েছে। এর মধ্যে সবার উপরে নাম রয়েছে মহারাষ্ট্র রাজ্যের।দেশের মধ্যে আক্রান্তের নিরিখে শীর্ষস্থানে রয়েছে মহারাষ্ট্র। এছাড়াও মধ্যপ্রদেশ, ছত্রিশগড় পাঞ্জাব, উত্তরপ্রদেশ, পশ্চিমবঙ্গ, গুজরাট, রাজস্থান, কেরল এবং তামিলনাড়ুতে ক্রমাগত বাড়ছে সংক্রমণ।

অর্থনৈতিক কারণে এই মুহূর্তে সম্পূর্ণ দেশে লকডাউন করা যাবে না বলে আপাতত আঞ্চলিক লকডাউন এর মাধ্যমে কাজ চালানোর চেষ্টা করছে কেন্দ্র এবং রাজ্যের সরকারগুলি।কিন্তু তাতে খুব বেশি পরিমাণে রোধ করা যাচ্ছে না সংক্রমণ এর বিস্তার। যদিও এর জন্য বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দায়ী মানুষই। কারণ যেটুকু সময় লকডাউন ছাড়া স্বাভাবিক জীবন-যাপন চলছে সেই সময়ের মধ্যে সাধারণ মানুষকে একফোঁটাও সতর্কবার্তা মানতে দেখা যাচ্ছে না। মাস্ক এবং স্যানিটাইজারের ব্যবহার প্রায় নেই বললেই চলে।

অপরদিকে বিভিন্ন জায়গায় ভিড় এবং জমায়েতের ফলে দ্রুত মানুষের দেহে ছড়িয়ে পড়ছে ভাইরাস। এই মুহূর্তে দেশের বেশ কয়েকটি রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার জন্য মিছিল-সমাবেশের মাধ্যমে দ্রুত আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। শেষ পর্যন্ত এই অবস্থায় শাহরুখ খানের পরবর্তী ছবি পাঠানের শুটিং বন্ধ করে দিতে বাধ্য হলেন পরিচালকরা। প্রসঙ্গত এই মুহূর্তে মুম্বইয়ে করোনার প্রকোপ অত্যন্ত শোচনীয় অবস্থায় রয়েছে। তাই ছবির শুটিং চললে স্বাভাবিকভাবেই এই মাত্রা আরো বৃদ্ধি পাবে।প্রসঙ্গত দিন কয়েক আগেই অক্ষয় কুমারের “রাম সেতু” ছবির শুটিং বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন-আইপিএলের প্রথম ম্যাচে জয়ী বেঙ্গালুরু; প্রত্যেকবারের মতই প্রথম ম্যাচে হারের ধারা অব্যাহত রাখল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স!

কারণ এই ছবির শ্যুটিং চলাকালীন অক্ষয় কুমার, ভূমি পেডনেকার সহ শুটিং সেটের মোট ৪৫ জন ব্যক্তি ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন।প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ২০১৮ সালে ’জিরো’ চলচ্চিত্রের পর আবারও ‘পাঠান’ ছবির মাধ্যমে কামব্যাক করতে চলেছেন শাহরুখ। কিন্তু ভাইরাসের অতিরিক্ত সংকটের ফলে সেখানেও তাল কাটতে দেখা যাচ্ছে। যার ফলস্বরুপ অনেকটাই মনমরা হয়ে পড়েছেন কিং খানের অনুরাগীরা। কিন্তু হঠাৎ করে এই শুটিং বন্ধ করার কারণ কি?প্রসঙ্গত জানা গিয়েছে দুবাইয়ের বিস্তীর্ণ অংশ জুড়ে ছবির শুটিং হলেও বাদবাকি শেষ পর্যায়ের শুটিং চলছিল মুম্বইতে।

মুম্বইতে শুট করা একটি দৃশ্যের জন্য ২৫০ টিরও বেশি কর্মকর্তাদের নিয়ে কাজ করতে হচ্ছিল প্রযোজনা সংস্থাকে। কিন্তু বর্তমানে দেশের ফিল্মসিটি মুম্বইয়ের যা পরিস্থিতি তাতে এই শুটিংয়ের কাজ চালানো মোটেও সুখকর নয়।তাই শেষ পর্যন্ত এই নতুন সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছে ছবির প্রযোজক সংস্থা।

শুটিং হতে দেরি হওয়ার ফলে ছবির মুক্তিও অনেকটা পিছিয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। বলে রাখি এই ছবিতে শাহরুখ খান ছাড়াও অভিনয় করছেন দীপিকা পাড়ুকোন। বহু বছর পর বড় পর্দায় একসঙ্গে কাজ করতে দেখা যাবে শাহরুখ-দীপিকার জুটিকে। পাশাপাশি এই ছবিতে অতিথি শিল্পী হিসেবে বলিউডের ভাইজান সলমান খানকেও দেখা যাবে বলে জানা গিয়েছে।

Related Articles

Back to top button