নিউজটেক নিউজদেশপলিটিক্স

“ভারতীয় নৌ সেনা সর্বদাই যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত”- চিনকে হুঁশিয়ারি প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের

নিজস্ব প্রতিবেদন: গতকাল কেরলের কোচিতে গিয়েছিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। কোচিতে প্রথম ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি একটি যুদ্ধ বিমানবাহী রণতরী তৈরি হচ্ছে। এই রণতরীর নাম হল ‘বিক্রান্ত’। আগামী ২০২২ সালেই সম্পূর্ণ ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি এই রণতরী তৈরি হয়ে যাবে।

জানা গিয়েছে এই যুদ্ধজাহাজ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি অন্যতম শক্তিশালী যুদ্ধজাহাজ হিসাবে বিবেচিত হতে চলেছে। এই যুদ্ধজাহাজে মোতায়েন থাকবে বিভিন্ন যুদ্ধ বিমান এবং অ্যাটাক হেলিকপ্টার। থাকবে কামোভ-৩১, এম এইচ৬০ আর রোমিও অ্যাটাক কপ্টার এবং মিগ ২৯ যুদ্ধবিমান। রাশিয়া থেকে এয়ারক্রাফট কেরিয়ার আইএনএস বিক্রমাদিত্য কিনেছিলো ভারত।

আরও পড়ুন-স্মার্ট সিটি মিশনে দেশে সেরা হল উত্তরপ্রদেশ। সেরা শহর হল সুরাট, ইন্দোর।

এখন এটাই একমাত্র ভারতের কাছে এয়ারক্রাফট কেরিয়ার। সেই দিকে চিনের কাছে বর্তমানে দুটি এয়ারক্রাফট কেরিয়ার রয়েছে। কিন্তু ভারতীয় নৌ সেনাও যথেষ্ট শক্তিশালী হয়ে উঠেছে।প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছেন, “২০২২ সালের প্রথম দিকেই এই রণতরী ভারতীয় নৌসেনার অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবে।

আরও পড়ুন-“বিজেপি বিরোধী কোনো মঞ্চ থেকে কংগ্রেসকে বাদ দেওয়া যাবে না।”- বললেন এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ার

সেই সাথে ভারতীয় নৌসেনার শক্তি কয়েকগুণ বাড়বে। সমস্ত রকমের অত্যাধুনিক প্রযুক্তি রয়েছে এই রণতরীর মধ্যে । ৭৫ তম স্বাধীনতার বছরে ভারতীয় নৌসেনার এই রণতরী অন্তর্ভুক্ত হবে।”এছাড়াও প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং চীনকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, “ভারতীয় নৌসেনার যেকোনো সময় চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করতে এবং যুদ্ধের ময়দানে আসীন হতে সদা সর্বদা প্রস্তুত হয়ে রয়েছে।

গালওয়ান উপত্যকা সংঘর্ষের পরেই নৌ সেনা বাহিনী মোতায়েন করেছিল। তাই যেকোনো পরিস্থিতিতে নৌসেনা পাল্টা প্রত্যাঘাত আনতে সক্ষম।”

Related Articles

Back to top button