মেহুল চোকসিকে দেশে ফেরাতে আটজনের বিশেষ দল পাঠালো ভারত।

মেহুল চোকসিকে দেশে ফেরাতে আটজনের বিশেষ দল পাঠালো ভারত।

নিজস্ব প্রতিবেদন: পিএনবি কেলেঙ্কারি মামলায় অন্যতম অভিযুক্ত মেহুল চোকসিকে ভারতে ফেরানোর জন্য প্রবল চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ইডি এবং সিবিআই। গত ২০১৮ থেকেই তাকে দেশে ফেরানোর চেষ্টা করছে তারা। ইতিমধ্যেই ডোমিনিকায় ধরা পড়েছে মেহুল চোকসি। অ্যান্টিগা থেকে সে পালিয়ে গিয়েছিলো ডমিনিকায়। নৌকায় পালিয়েছিলো ডমিনিকা দ্বীপে। সেখানেই ধরা পড়ে মেহুল চোকসি। লুক‌আউট নোটিশ জারি করেছিলো অ্যান্টিগা প্রশাসন।

গত বুধবার রাতে জানা গিয়েছিল যে, অ্যান্টিগার কারাগারে বন্দী রয়েছেন মেহুল চোকসি। অ্যান্টিগার প্রধানমন্ত্রী গ্যাস্টন ব্রাউন বলেছেন যে, অ্যান্টিগা থেকে উধাও হয়ে যাওয়ার পর তার নামে লুক‌আউট নোটিশ জারি হয়। ডমিনিকায় গ্রেফতার করা হয় তাকে। সেখান থেকে কিউবা পালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন চোকসি। অ্যান্টিগার প্রধানমন্ত্রী দাবি করেছেন যে, “বান্ধবীকে নিয়ে ডোমিনিকায় রোমান্টিক মূহুর্ত কাটাতে গিয়েছিলেন মেহুল চোকসি।

“ইতিমধ্যেই মেহুল চোকসিকে ফেরানোর জন্য ব্যাপক তৎপরতা শুরু করেছে ভারত সরকার। জানা গেছে ইতিমধ্যেই অ্যান্টিগা প্রশাসনকে প্রত্যর্পণের নথিপত্র পাঠিয়ে দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। ভারতের একটি ব্যক্তিগত বিমান ইতিমধ্যেই ডোমিনিকার চার্লস বিমানবন্দরে উপস্থিত হয়েছে মেহুল চোকসিকে দেশে ফেরানোর লক্ষ্যে। কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে আটজন সদস্য রয়েছেন এই বিশেষ দলটিতে।

ইডি, সিবিআই, কেন্দ্রীয় বিদেশ মন্ত্রকের দুইজন করে অফিসার এবং, সিআরপিএফের দুইজন কম্যান্ডো রয়েছেন এই বিশেষ দলটিতে। কাতার থেকে একটি চার্টার্ড বিমানে এই দল পৌঁছে গিয়েছে ডমিনিকায়। ডমিনিকার আদালতে প্রমাণ করতে হবে যে মেহুল চোকসি একজন ভারতীয় নাগরিক। তার জন্য সমস্ত রকম প্রমাণপত্র নিয়ে গিয়েছে এই বিশেষ ভারতীয় দল। মেহুল চোকসিকে প্রত্যর্পণ করা হলে ওই বিশেষ বিমানেই নিয়ে আসা হবে বারতে।