নিউজ

উত্তরপ্রদেশের বুকে পঞ্চায়েত ডিউটি করে মৃত্যু ৫৭৭ জন শিক্ষকের

নিজস্ব প্রতিবেদন: দেশের করোনা পরিস্থিতি ক্রমেই আরো শোচনীয় হচ্ছে। দিনের পর দিন বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এরই মধ্যে ভয়াবহ সমস্যা উপস্থিত হয়েছে অক্সিজেনের ঘাটতি কে কেন্দ্র করে। দেশের বিভিন্ন রাজ্যে দেখা দিয়েছে অক্সিজেনের অপ্রতুলতা। অসহায় রোগীরা একটু অক্সিজেনের অভাবে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছেন। উত্তর প্রদেশ থেকে শুরু করে, পশ্চিমবঙ্গ, দিল্লি, মহারাষ্ট্রে তীব্রতর রূপে দেখা দিয়েছে অক্সিজেনের সংকট।

অক্সিজেনের এই সংকট দূর করার জন্য প্রাণপণ চেষ্টা চালাচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। ইতিমধ্যেই বন্ধু হিসেবে পাশে দাঁড়িয়েছে সৌদি আরব। সৌদি আরব ভারতের উদ্দেশ্যে ৫০০০ অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রেরণ করেছে। ‌ এছাড়াও এখনো পর্যন্ত করোনা মোকাবিলায় ৪২ টি দেশের সহায়তা পেয়েছে ভারত।এদিকে এই ভয়াবহ আবহে উত্তরপ্রদেশের বুকে পঞ্চায়েত নির্বাচনের কাজে গিয়ে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৫৭৭ জন শিক্ষকের।

আরও পড়ুন-“করোনার ভ্যাকসিন থেকেও কাটমানি খাচ্ছে মোদী সরকার।”- বিস্ফোরক অভিষেক।

ওই মৃত শিক্ষকদের বাড়ির অনেক সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ।উত্তরপ্রদেশের শিক্ষক সংগঠনগুলোর দাবি, ৫৭৭ জন শিক্ষক ইতিমধ্যেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন, তাই আগামী ২ রা মে ভোট গণনার কাজে তারা একদমই যেতে চাইছেন না।এদিকে এলাহাবাদ হাইকোর্ট রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়ে শিক্ষকদের মৃত্যু সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চেয়েছে । আগামী ৩ রা মে পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছে আদালত।

কিন্তু শিক্ষক সংগঠন গুলির প্রবল অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেছেন ২ রা মে ভোট গণনার দিন পিছিয়ে দেওয়া অবশ্যই উচিত ছিল আদালতের। এদিকে নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে যে, শিক্ষকদের মৃত্যু সম্পর্কে সমস্ত রিপোর্ট পাঠাতে বলা হয়েছে ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেট এবং জেলার পুলিশ সুপার কে। উত্তরপ্রদেশের শিক্ষক সংগঠনের সভাপতি দীনেশ চন্দ্র শর্মা বলেছেন , “রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি গত ২২ শে এপ্রিল থেকেই ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। নির্বাচন কমিশনের কাছে ভোট আপাতত বন্ধ রাখার আবেদন জানিয়ে ছিলাম কিন্তু সেই আবেদন মানেনি কমিশন।”

Related Articles

Back to top button