করোনার এই আবহে দিল্লিতে রমরম করে চলছে ‘গম্ভীর ক্যান্টিন’।

করোনার এই আবহে দিল্লিতে রমরম করে চলছে ‘গম্ভীর ক্যান্টিন’।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারা দেশজুড়ে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে করোনা। এই ভাইরাসের কবলে পড়ে প্রাণহানি হচ্ছে অগুণতি মানুষের। পশ্চিমবঙ্গের বুকেও ভয়াবহ তান্ডব চালাচ্ছে এই ভাইরাস। পশ্চিমবঙ্গের মাটিতেও এই ভাইরাসের শিকার হয়ে ঝরে গিয়েছে বহু তরতাজা প্রাণ। ইতিমধ্যেই পশ্চিমবঙ্গের বুকে জারি হয়েছে লকডাউন। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন রাজ্যে লকডাউন জারি হতেই বেশ কিছু মানুষ পড়েছে চরম সংকটে।

অনেকেরই আবার কাজ বন্ধ হয়ে গিয়েছে। নুন আনতে পান্তা ফুরায় সংসারে পরিবারের সদস্যদের মুখে অন্ন তুলে দিতে হিমশিম খাচ্ছেন বহু জন। এই পরিস্থিতিতে অনেকেই দুঃস্থ মানুষগুলোর পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে এসেছেন। অনেক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গুলো প্রতিনিয়ত খাবার বিলি করছেন অসহায় মানুষগুলোকে। এরকমই একজন মানুষ হলেন জনপ্রিয় প্রাক্তন ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর।

আরও পড়ুন-“আলাপন বাঙালি , কিন্তু দময়ন্তী সেন কি বহিরাগত ছিলেন?”- মুখ্যমন্ত্রীকে প্রশ্নবান সোশ্যাল মিডিয়ায়

করোনার এই ভয়াবহ আবহে কাজ হারিয়ে দূর্দশার চরম সীমায় নেমে গিয়েছেন বহু মানুষ। দুবেলা অন্ন সংস্থান করতেই রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছেন তারা। সেই সমস্ত দুঃস্থ, অসহায় মানুষগুলোর জন্য গৌতম গম্ভীর দিল্লির বুকে চালু করেছিলেন ১ টাকার ক্যান্টিন। এই ক্যান্টিনে মানা হয় কড়া কোভিড বিধি। প্রথমে ১ টাকা দিয়ে টোকেন সংগ্রহ করা হয়। এই বছরেই প্রথমে দিল্লির গান্ধীনগরে এই ক্যান্টিন চালু করেছিলেন গৌতম গম্ভীর। এই ক্যান্টিনের নাম দিয়েছিলেন ‘জন রসোই’।

আরও পড়ুন-পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটি বাড়িতে বিশুদ্ধ পানীয় জল পৌঁছে দিতে ৭ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করল কেন্দ্রীয় সরকার।

ইতিমধ্যে অশোকনগরেও এরকম একটি ক্যান্টিন চালু করেছেন তিনি। মাত্র ১ টাকার বিনিময়ে দু বেলা পেটভরে খেতে পাচ্ছেন মানুষজন। সকলেই দুহাত তুলে আশীর্বাদ করছেন গৌতম গম্ভীরকে। দুঃস্থ অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে পেরে খুশী গৌতম‌ও। তিনি বলেছেন, “প্রতিটি মানুষের অধিকার রয়েছে স্বাথ্যকর খাবার খাওয়ার। মানুষগুলোর দুবেলা পেট ভরছে দেখে খুব‌ই ভালো লাগছে।”