নিউজবিনোদন

“আমাকে ফাঁসানো হচ্ছে”- আদালতে কান্না বাংলাদেশের অভিনেত্রী পরীমনির

নিজস্ব প্রতিবেদন: গত সপ্তাহে বাংলাদেশী নায়িকা পরিমনির বাড়ি থেকে বাংলাদেশের র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন নিষিদ্ধ মাদক এবং মদ উদ্ধার করেছে। সাথে সাথেই নায়িকাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পরিমনির বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার করা হয়েছে ৩০ টি বিদেশী মদের বোতল, এলএসডি নেশার জন্য ব্যবহৃত ব্লটিং কাগজ, এবং কিছু নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্য।

এদিকে বাংলাদেশী লেখিকা তসলিমা নাসরিন ফেসবুকে পরিমনির পক্ষ নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের বিরুদ্ধাচরণ করে যথেষ্ট আক্রমণ শানিয়েছেন।জানা গিয়েছে বাংলাদেশের গুলশান বিভাগের এডিসি মহম্মদ গোলাম সাকলায়েন শিথিলের সাথে সম্পর্ক রয়েছে পরিমনির এমনটাই গুঞ্জন উঠেছে। এদিকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ সাকলায়েনকে তাঁর দ্বায়িত্ব থেকে হটিয়ে দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন-“দিনের পর দিন রিমান্ডে রেখে পরীমনি কি ধর্ষণের শিকার হচ্ছে?”- প্রশ্ন করলেন তসলিমা নাসরিন

এদিকে প্রথম থেকেই পরীমনির স্বপক্ষে একের পর এক পোস্ট করে তাঁর পাশে দাঁড়িয়েছেন বাংলাদেশের বিখ্যাত লেখিকা তসলিমা নাসরিন।গতকাল ৪ দিনের রিমান্ড শেষে ঢাকার হাকিম আদালত থেকে সিআইডি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে পরীমনিকে। সেখানেই তিনি হঠাৎ চিৎকার করে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে কাঁদতে কাঁদতে বলেন, “আমাকে সম্পূর্ন ফাঁসানো হচ্ছে, আমাকে কোন কথা বলতে দেওয়া হচ্ছে না।

আরও পড়ুন-“আর কখনো নায়ক নায়িকাদের গাড়ি চালাবো না”- বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন বাংলাদেশী নায়িকা পরিমনির গাড়িচালক

সাংবাদিকরা আপনারা কি করছেন? আপনারা সত্য খবর প্রকাশিত করুন।”আদালতের মধ্যেও শুনানি চলাকালীন পরীমনি কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন। পরীমনির আইনজীবী মুজিবুর রহমান বলেছেন , “অভিনেত্রী পরীমনি কে এক‌ই কাপড় পরিয়ে রাখা হয়েছে, তাঁকে তাঁর কোনো আত্মীয়স্বজনের সাথে সাক্ষাৎ করতে দেওয়া হচ্ছে না।

এর ফলে গণতান্ত্রিক অধিকার তাঁর ক্ষুন্ন হচ্ছে।”

Related Articles

Back to top button