“সময়মতো টিকা দিলে এত হারে কোভিড ছড়িয়ে পড়তো না”- কেন্দ্রকে বিঁধলেন মুখ্যমন্ত্রী

“সময়মতো টিকা দিলে এত হারে কোভিড ছড়িয়ে পড়তো না”- কেন্দ্রকে বিঁধলেন মুখ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন: আঘাত তাঁকে কাবু করতে পারেনি। পায়ে প্লাস্টার নিয়েই তিনি বিগত এক মাস ধরে অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন একুশের ভোটে তৃণমূলের অস্তিত্ব বাংলার বুকে টিকিয়ে রাখার জন্য। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হুইল চেয়ার কে সঙ্গী করেই তার মতামত পৌঁছে দিচ্ছেন বাংলার প্রতিটি মানুষের কাছে।

জনসভা থেকে শুরু করে রোড শো প্রভৃতির মাধ্যমে তিনি মানুষের আরো কাছে পৌঁছাতে চাইছেন। তার একটাই লক্ষ্য নবান্নের কর্তৃত্ব তৃণমূলের হাতেই কুক্ষিগত করে রাখা। কিন্তু একক শক্তিশালী দল হিসেবে ক্রমশ‌ই মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে বিজেপি । কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী প্রথম থেকেই আত্মবিশ্বাসী যে বাংলা থেকে তিনি সাফ করে দিতে সক্ষম হবেন বিজেপিকে।জলপাইগুড়ির বেরুবাড়ির সিপাহিপাড়ার জনসভা থেকে তিনি কড়া আক্রমণ শানিয়েছেন বিজেপিকে।

আরও পড়ুন-“২ তারিখে বলি দেওয়ার হুমকি দিচ্ছে তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা।”- পার্নো মিত্রের রোড শো তে অশান্তি, ধুন্ধুমার।

তিনি বলেছেন, “বিজেপি উদ্বাস্তুদের এলাকায় বলে তৃণমূল উদ্বাস্তুদের পছন্দ করেনা, হিন্দু-মুসলমানের গন্ডগোল লাগিয়ে দিচ্ছে ওরা।বিজেপি বলে হরে কৃষ্ণ হরি হরি গুলি করে লোক মারি। রাজ্যজুড়ে আবার করোনা ছড়িয়ে দিয়েছে বিজেপি। আমরা সবকিছু ভালো করে দিয়েছিলাম। কেন্দ্র যদি সময় মতো সমস্ত টীকা দিয়ে দিত তাহলে এত হারে কোভিড হত না। বিজেপি বাইরে থেকে গাদা লোক এনেছে, তারা এখানে করোনা ছড়াচ্ছে। আগে কোভিডের সময় বিজেপির একটা নেতাও আসেনি, আর এখন ভোটের সময় এসে বলছে ভোট দাও। বিজেপি ছদ্মবেশী ধর্ম করে। কেবল মানুষ মারতে আর দাঙ্গা লাগাতে জানে।