“কেউ যদি প্রমাণ করতে পারিজি বিজেপিতে যোগদানের জন্য টাকা নিয়েছি, তাহলে আমার কান কেটে ফেলে দেবো”- বললেন বিজেপি প্রার্থী তনুশ্রী।

“কেউ যদি প্রমাণ করতে পারিজি বিজেপিতে যোগদানের জন্য টাকা নিয়েছি, তাহলে আমার কান কেটে ফেলে দেবো”- বললেন বিজেপি প্রার্থী তনুশ্রী।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটে বহুল পরিমাণে তারকা যোগ হয়েছে বাংলার রাজনৈতিক সংগঠন গুলিতে। বিশেষ করে তৃণমূল আর বিজেপি তে এবারে গ্ল্যামারের ঘনঘটায় একুশের ভোট হয়ে উঠেছে আরো রঙিন। তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেছেন কৌশানি মুখোপাধ্যায়, সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, কাঞ্চন মল্লিক, জুন মালিয়া প্রমুখ। তৃণমূলে অনেক আগে থেকেই রয়েছেন সংসদ তথা অভিনেতা দেব, অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী, নুসরত জাহান। তেমনি বিজেপিতে এবারে তারকা প্রার্থীদের আগমন ঘটেছে। বিজেপিতে নাম লিখিয়েছেন অভিনেত্রী পায়েল, শ্রাবন্তী, অভিনেতা যশ, হিরণ প্রমুখেরা। প্রার্থীরা নিজেদের নিজেদের কেন্দ্রে জোরদার প্রচার করেছেন।

শ্যামপুরের বিজেপি প্রার্থী তনুশ্রী চক্রবর্তী। তিনি প্রথম থেকেই সক্রিয় ভাবে প্রচার অভিযানে সামিল হয়েছেন। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত খাঁ খাঁ রোদে প্রচার চালাচ্ছেন তিনি। তিনি প্রথম থেকেই যথেষ্ট আশাবাদী যে নিজের কেন্দ্রে এবার তিনি জয়ের মুখ দেখবেন। ‌ তিনি বলেছেন,”অনেকেই ছোটবেলা থেকেই আমরা শুনে আসছি রাজনৈতিক নেতা মানেই তাঁরা দুর্নীতিগ্রস্ত হন, কিন্তু বিজেপি তে এসে দেখলাম রে এই নেতাদের মধ্যে কোনরকম দুর্নীতির লেশমাত্র নেই।

আরও পড়ুন-“বাংলার মানুষের ভ্যাকসিন এর জন্য ১০০ কোটির তহবিল গঠিত হবে”- বললেন মুখ্যমন্ত্রী

প্রথম থেকেই বিজেপির আদর্শে আমি খুবই মুগ্ধ হয়েছিলাম, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কথা সবাই শোনেন, আমিও তার পাশে থেকে কাজ করতে চেয়েছি। অনেকেই অভিযোগ তুলছেন যে টাকা নিয়ে আমি বিজেপিতে যোগদান করেছি। এটা যদি কেউ প্রমাণ করতে পারেন যে আমি টাকা নিয়েছি তাহলে আমি কথা দিচ্ছি আমি আমার কান কেটে ফেলে দেবো। পশ্চিমবঙ্গে মানুষের হাতে টাকা নেই।

মুখ্যমন্ত্রী কে পশ্চিমবঙ্গের মানুষ ভোট দিয়েছিলেন কর্মসংস্থানের আশায় যেটা পশ্চিমবঙ্গে হয়নি। কোন শিল্পপতিরা পশ্চিমবঙ্গে বিনিয়োগ করতে চাইছেন না। কিন্তু আমার কেন্দ্রে মানুষ আমাকে বিশ্বাস করছে, আমার দিকে ভরসার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। আমি সকলের সাথে মিশতে পারি। অনেকেই দিলীপ ঘোষকে উল্টোপাল্টা কথা বলেন, তবে আমি মনে করি দিলীপ ঘোষের মতো মানুষ হয় না। ‌ দিলীপ দা শিল্পীদের সম্মান করেন, তাই আমি উনার দলে সম্মানের সাথে রয়েছি।”