নিউজদেশপলিটিক্স

“৩৭০ ধারা না ফিরলে ভোটে দাঁড়াবো না।”- আবার সোচ্চার মেহবুবা মুফতি।

নিজস্ব প্রতিবেদন: দুই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল ভাগ করার পর জম্মু-কাশ্মীরে আবার শান্তি প্রক্রিয়া শুরু করতে যথেষ্ট তৎপরতা দেখিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার করার আলোচনা পর্বের উদ্দেশ্যে গত বৃহস্পতিবার জম্মু-কাশ্মীরের সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলির সাথে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী। এই বৈঠকে হাজির হয়েছিলেন জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি। এই বৈঠকের পরে তিনি জানিয়েছিলেন যে সরকারের সঙ্গে যথেষ্ট সুস্থ আলোচনা হয়েছে। ‌

কিন্তু এই বৈঠকের ২৪ ঘন্টা কাটার আগেই মেহবুবা মুফতি জানিয়ে দিয়েছেন যে, যতদিন না পর্যন্ত সংবিধানের ৩৭০ ধারা জম্মু-কাশ্মীরের বুকে আবার বলবৎ হবে ততদিন পর্যন্ত তিনি নির্বাচনে দাঁড়াবেন না। ‌ তার এই ঘোষণার ফলে উপত্যাকায় রাজনৈতিক প্রক্রিয়া শুরু করায় প্রধানমন্ত্রীর তৎপরতা আবার অনিশ্চয়তার মুখে পড়লে মতামত ব্যক্ত করেছে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।গত বৃহস্পতিবার দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে উপস্থিত হয়েছিলেন মেহবুবা মুফতি। তিনি এই বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানিয়েছেন যে জম্মু-কাশ্মীর কে আবার পূর্ণ রাজ্যের মর্যাদা ফিরিয়ে দিতে হবে।

আরও পড়ুন-হিংসায় উস্কানি দেওয়ার অভিযোগে মিঠুন চক্রবর্তীকে আবার নোটিশ পাঠিয়ে করা হতে পারে জিজ্ঞাসাবাদ।

‌ উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন যে উপযুক্ত সময় এলে সরকার অবশ্যই জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা ফিরিয়ে আনবে। প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি মাফিক জম্মু-কাশ্মীরের বিধানসভা কেন্দ্র গুলির সীমানা পুননির্ধারণ করার জন্য স্থানীয় রাজনৈতিক দলগুলির সাহায্য চেয়েছিলেন। কিন্তু এর পরেই একটি সাক্ষাৎকারে মেহবুবা মুফতি বলেছেন, “যতদিন না পর্যন্ত জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা ফিরিয়ে না আনা হচ্ছে ততদিন পর্যন্ত আমি নির্বাচনে লড়াই করবো না। আগেই জম্মু-কাশ্মীরের মানুষের মধ্যে আস্থা ফিরিয়ে আনতে হবে।

আরও পড়ুন-কলকাতা পুরসভার সাথে দেবাঞ্জনের কি যোগসূত্র? সমস্ত দপ্তরকে নথি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিলেন ফিরহাদ হাকিম

জঙ্গিদের হত্যা করে নিরাপত্তা বাহিনী সাফল্য দাবি করতে পারে কিন্তু এই সাফল্য কেন্দ্রীয় সরকারের নয়। কেন্দ্রীয় সরকারকে আগে বুঝতে হবে জম্মু-কাশ্মীরের তরুণরা কেন জঙ্গি’ দলে নাম লেখাচ্ছে। মানুষ কেন ক্ষুব্ধ হয়েছে এই বিষয়টি সরকারকে উপলব্ধি করতে হবে। আমি নির্বাচনের বিরোধিতা করছিনা।

জম্মু কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। যার জন্য জম্মু-কাশ্মীরের প্রতিটি মানুষ ক্ষুব্ধ। অবিলম্বে জম্মু-কাশ্মীরের মর্যাদা কেন্দ্রীয় সরকারকে ফিরিয়ে দিতে হবে।”

Related Articles

Back to top button