“তৃণমূলকে বাংলা থেকে উচ্ছেদ করতে যা করতে হয় তাই করবো।”- শহীদ মঞ্চ থেকে হুঙ্কার শুভেন্দুর

“তৃণমূলকে বাংলা থেকে উচ্ছেদ করতে যা করতে হয় তাই করবো।”- শহীদ মঞ্চ থেকে হুঙ্কার শুভেন্দুর

নিজস্ব প্রতিবেদন: এবারের একুশে জুলাইয়ের এই উদ্‌যাপনের যথেষ্ট গুরুত্ব রয়েছে রাজনৈতিক ক্ষেত্রে । এবারেই প্রথম সর্বভারতীয় স্তরে নিজের বক্তৃতা পেশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগামী ২০২৪ এর লোকসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে এবারে লড়াই করতে চলেছে তৃণমূল। তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের লক্ষ্য বিজেপি বিরোধী শক্তিগুলোকে ঐক্যবদ্ধ করার।

এদিকে গতকাল তৃণমূলের পাশাপাশি বিজেপি তাদের নিহত কর্মীদের শ্রদ্ধার্ঘ্য জানাতে শহীদ দিবস পালন করেছে। বিজেপি দাবি করেছে গত ২০১৮ র পঞ্চায়েত ভোটের পরবর্তী সময় থেকে তৃণমূল এর হাতে তাদের ১০০ র’ও বেশী কর্মী নিহত হয়েছেন। তাই তাদের শ্রদ্ধার্ঘ্য জানাতে বিজেপি গতকাল শহীদ দিবস পালন করেছে বলে জানা গিয়েছে। রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় এই কর্মসূচি পালন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিজেপি নেতৃত্ব।

আরও পড়ুন-পিএসি পদ থেকে মুকুল রায়কে সরানোর প্রমাণ জোগাড় করে টুইট করলেন শুভেন্দু অধিকারী।

গতকাল দিল্লিতে শহীদ দিবস পালন করছে বিজেপি। রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসায় নিহত কর্মী-সমর্থকদের ছবি এবং কাট আউট নিয়ে রাস্তায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিজেপি । সেই মতোই গতকাল সকাল সাড়ে এগারোটায় দিল্লিতেও বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিজেপি।বিজেপির শহীদ দিবসের কর্মসূচিতে যোগদান করে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন, “পশ্চিমবঙ্গের মাটি থেকে তৃণমূলকে উপড়ে ফেলার জন্য যা যা করার সব করবো।

আরও পড়ুন-খারিজ হয়ে যেতে পারে তৃণমূল বিধায়ক অশোক দেবের সদস্যপদ।

শুভেন্দু সবকিছু করবে। বিধানসভার উপনির্বাচন করানোর জন্য নির্বাচন কমিশনের ওপর চাপ সৃষ্টি করছে রাজ্য সরকার। কিন্তু রাজ্যের ১১০ টা পৌরসভা এবং পৌরনিগমে ভোট করতে দিচ্ছেন না মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু তিনি ভবানীপুরে উপনির্বাচন করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছেন।

কারণ তৃণমূলের শুধু মমতাই পোস্ট বাকি সব ল্যাম্পপোস্ট। আপনারা দেখবেন এক কানকাটা ব্যক্তিরা রাস্তার এক ধার দিয়ে চলাফেরা করে, আর দু কান কাটা ব্যক্তিরা রাস্তার মাঝখান দিয়ে চলাফেরা করে।”শুভেন্দুর এই মন্তব্যের এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া দেয়নি তৃণমূল কংগ্রেস।