নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“কুনাল ঘোষ-দিলীপ ঘোষকে নয়, তাঁদের মন্তব্যকে অমার্জিত বলেছি”- মন্তব্য করলেন বাবুল সুপ্রিয়।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাবুল সুপ্রিয় ফেসবুক পোস্টে পরিষ্কারভাবে ঘোষণা করেছেন যে তিনি বিজেপি তথা রাজনীতি ছেড়ে দিচ্ছেন। এছাড়াও বাবুল জানিয়েছেন যে তিনি তাঁর সাংসদ পদের বেতন আর নেবেন না এবং দলীয় সূত্রে পাওয়া বাড়ি তিনি ফিরিয়ে দেবেন আগামী এক মাসের মধ্যেই। তিনি ফেসবুকে ‘অলবিদা , চললাম’ লিখে পোস্ট করেছিলেন‌ । আর এই পোস্টকে ঘিরেই যথেষ্ট কটাক্ষ করেছেন তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষ।

জানা গিয়েছে বিজেপির সর্বভারতীয় সম্পাদক জে পি নাড্ডা বাবুলকে নিজে ফোন করে সাংসদ পদ না ছাড়ার অনুরোধ করেছেন। এখন বাবুল কি সিদ্ধান্ত নেবেন সেটাই দেখার বিষয়। এই মর্মে কুণাল ঘোষ টুইটারে বলেছেন,”কী বাবুল সুপ্রিয় , গল্প তৈরি রেখেছেন তো? স্পীকার পদত্যাগের চিঠি নিতে চাইছেন না, মোদীজী-নাড্ডাজীরা না ছাড়ার অনুরোধ করেছেন, যার দরুণ চিঠিতে টেকনিক্যাল সমস্যা থেকে গেলো।

আরও পড়ুন-বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ নির্বাচিত জহর সরকার।

এটা সম্পূর্ণ কাঁচা হাতের লেখা একটি নাটক। এবার যদি উনি নাটক স্বীকার করে নিয়ে পোস্ট দেন তাহলে ভালোই। ঠিক জলট্যাঙ্কের উপর ধর্মেন্দ্র‌র ওঠার ঘটনা।”এছাড়াও বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বাবুলকে কটাক্ষ করেছেন।

এদিকে এই আক্রমণের পরিপ্রেক্ষিতে বাবুল সুপ্রিয় বলেছেন,”আমি আপনাদের কমেন্টগুলি পড়লাম। যে যার নিজের মতো করে আমার বিরোধিতা করেছেন ,প্রশ্ন করেছেন, আবার কিছু মানুষ নিজেদের রুচি প্রসঙ্গে তাদের ভাষার ব্যবহার করেছেন, সবটাই আমি মেনে নিলাম। কিন্তু আপনাদের সমস্ত প্রশ্নের জবাব আমি আমার কাজের মাধ্যমেও দিতে পারি। এর জন্য মন্ত্রী অথবা সাংসদ পদে বসার কোন দরকার নেই।”

আরও পড়ুন-এবার উত্তরপ্রদেশের ফিরোজাবাদ শহরের নাম বদলাতে চলেছে যোগী সরকার।

এছাড়াও অভিযোগ উঠেছিলো যে বাবুল নাকি দিলীপ ঘোষ এবং কুণাল ঘোষকে অমার্জিত বলে মন্তব্য করেছেন। এই প্রসঙ্গে বাবুল বলেছেন,”আমি দিলীপ ঘোষ এবং কুণাল ঘোষকে উদ্দেশ্য করে অমার্জিত বলিনি, আমি উনাদের মন্তব্য গুলোকে অমার্জিত বলেছি। আমি এখনো এক‌ই কথাই বলছি যে ওই ভাষা গুলো অমার্জিত।”

Related Articles

Back to top button