নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“মুখ্যমন্ত্রীর ব্যবহারে অত্যন্ত আপ্লুত হয়েছি।”- পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সাথে সাক্ষাৎ করার পর মন্তব্য করলেন শোভন-বৈশাখী

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটের আগেই বিজেপির সঙ্গ ত্যাগ করেছিলেন শোভন-বৈশাখী। গত ২ রা মে বাংলার রাজনৈতিক পালাবদলের পরেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যথেষ্ট প্রশংসা করেছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। বর্তমানে বহু আলোচিত চরিত্র হলেন শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। কয়েকদিন আগে সিবিআইয়ের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়।

নারদ মামলায় সিবিআই গ্রেপ্তার করেছিল তাকে। অবশেষে তিনি জামিন পেয়েছেন কলকাতা হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চে। শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মাতৃ বিয়োগ হওয়ার পরেই তাকে সমবেদনা জানাতে গিয়ে ছিলেন শোভন-বৈশাখী। গতকাল সন্ধ্যায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে তারা গিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন-পূর্ব মেদিনীপুর থেকে জেলা সফর শুরু করতে চলেছেন যুব তৃণমূল সভানেত্রী সায়নী ঘোষ।

এরপরই পার্থ চট্টোপাধ্যায় এর সাথে তাদের সাক্ষাৎ ঘিরে যথেষ্ট জল্পনার সৃষ্টি হয়েছে। এর আগে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে গিয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, সুব্রত বক্সী সহ আরো কয়েকজন তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীরা। এছাড়াও পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মাতৃবিয়োগে সমবেদনা জানাতে গিয়ে ছিলেন বর্তমান বিজেপির নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়‌ও।এছাড়াও মাদারিহাট এর বিজেপি বিধায়ক মনোজ টিগ্গাও গতকাল গিয়েছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে সমবেদনা জানাতে।

আরও পড়ুন-পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে হাজির মাদারিহাটের বিজেপি বিধায়ক । উঠলো জল্পনা।

মনোজ টিগ্গার সাথে পার্থ চট্টোপাধ্যায় এর সাক্ষাতেও যথেষ্ট জলঘোলা হয়েছে বাংলার রাজনৈতিক পটভূমিতে।গতকাল সন্ধ্যা আটটা নাগাদ পার্থ বাবুর বাড়ি গিয়ে প্রায় এক ঘণ্টারও বেশি সময় পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে ছিলেন শোভন-বৈশাখী। আবার কি তারা তৃণমূলে তাদের রাজনৈতিক জীবন শুরু করতে চলেছেন সেই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে বাংলার রাজনৈতিক মহলে। সংবাদমাধ্যমকে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, “মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চোখে শোভনের জন্য যে স্থান ছিল আর শোভন চট্টোপাধ্যায়ের চোখে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে স্থান নিয়েছিলেন সেই স্থান এখনো একই আছে।

নারদ কান্ডে মুখ্যমন্ত্রী তিন নেতা মন্ত্রীর জন্য যেভাবে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন তিনি সেই একই উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়ের জন্যেও। বাংলায় বিজেপির অধ্যায় শেষ হয়ে গিয়েছে।”

Related Articles

Back to top button